কাল বিরাট-মর্গানের মগজাস্ত্রের লড়াই

আবু ধাবি : কলকাতা নাইট রাইডার্সের আইপিএল অভিযানের স্ক্রিপ্টটা একেবারে বলিউডের থ্রিলারের মতো। প্রথম পর্বে সাত ম্যাচের পর কেকেআর প্লে-অফে যাবে, ভাবেনি কেউ। অথচ মরুদেশে আইপিএল পার্ট টু-তে ছবিটা আমূল বদলে গিয়েছে। আর সেই বদলের শুরুটা হয়েছিল বিরাট কোহলির রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের বিরুদ্ধে ম্যাচ থেকেই।

সাত বছর আগে ২০১৪ সালেও তো এমনই হয়েছিল। প্রথম পর্বে ব্যর্থতার রেশ কাটিয়ে দ্বিতীয় পর্বে ঘুরে দাঁড়িয়েছিল কেকেআর। শেষ পর্যন্ত চ্যাম্পিয়ানও হয়েছিল নাইটরা। চলতি আইপিএলের নকআউট পর্ব শুরুর পর নাইটদের ভাগ্য কোন পথে যাবে, হয়তো কালই স্পষ্ট হয়ে যাবে। কিন্তু তার আগে কালকের কেকেআর বনাম আরসিবির এলিমিনেটর ম্যাচের আগে দুই শিবিরই সতর্ক, সংয়ত। যার পিছনে রয়েছে দুই দলের দুই অধিনায়কের মনোভাব।

- Advertisement -

আরসিবির অধিনায়ক হিসেবে কোহলি ইতিমধ্যেই ঘোষণা করে দিয়েছেন, এটাই তাঁর শেষ মরশুম। ফলে কালকের ম্যাচ কোহলি কোনওভাবেই হেরে আরসিবি অধিনায়ক হিসেবে শেষ করতে চাইবেন না। আইপিএল খেতাবটা অন্তত একবার পেতে চাইবেন তিনি। অন্যদিকে, কেকেআরের সর্বাধিনায়ক ইয়োন মরগ্যানও চাইবেন না কালই তাঁর দলের বিদায় ঘণ্টা বেজে যাক। কারণ, ২০১৯ বিশ্বজয়ী অধিনায়ক হিসেবে মরগ্যানের এখনও অনেক কিছু প্রমাণের বাকি। ফলে কাল কেকেআর বনাম আরসিবি নিশ্চিতভাবেই দুই অধিনায়কের মগজাস্ত্রের লড়াই হতে চলেছে।

দীর্ঘ অপেক্ষা, অনেক সমীকরণের মাধ্যমে কেকেআর ১৪ পয়েন্ট নিয়ে প্লে-অফের টিকিট নিশ্চিত করেছে। তুলনায় আরসিবির এগিয়ে চলার পথে এত জটিলতা ছিল না। তাছাড়া শেষ ম্যাচে দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে শেষ বলের উত্তেজক জয় ও শ্রীকর ভরতের ছক্কা কোহলির দলের আত্মবিশ্বাস বাড়িয়েছে অনেকটাই। আত্মবিশ্বাস কেকেআরেরও কম নেই। চোট সারিয়ে কালকের ম্যাচে ফিরছেন আন্দ্রে রাসেল। সাকিব আল হাসানের পরিবর্ত হিসেবে মাঠে নামবেন তিনি।