নির্বাচন পর্ব শেষ হতেই উত্তপ্ত ফাঁসিদেওয়া, জখম ২

64

ফাঁসিদেওয়া, ১৭ এপ্রিলঃ গোটা দিন শান্তিপূর্ণ ভোট পর্ব শেষ হতেই, উত্তপ্ত হয়ে উঠল ফাঁসিদেওয়া বিধানসভা কেন্দ্র। অভিযোগ, সংশ্লিষ্ট বিধানসভা কেন্দ্রের কালারাম সংলগ্ন ঘোষপাড়া মোড় এলাকায় শনিবার রাতে এক তৃণমূল সমর্থক তথা চাউমিন ব্যবসায়ীকে বিজেপির কিছু কর্মী ব্যক্তিগত আক্রোশ থেকে অতর্কিতে হামলা চালায়। ঘটনাকে কেন্দ্র করে মুহূর্তে উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়। কালারাম বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর জওয়ানরা সেই সময় ইভিএম মেশিন জমা দেওয়ার শেষ প্রস্তুতি চলছিল। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে।

ঘটনার খবর পেয়ে ফাঁসিদেওয়া থানার ওসি সুজিত দাস বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। জখম তৃণমূল সমর্থক তথা ব্যবসায়ীর তারকনাথ ঘোষ অভিযোগ করেছেন, ভোলা ঘোষ এবং বাবলা ঘোষ নামে দুই বিজেপি কর্মী এদিন রাতে তিনি তৃণমূল পার্টি অফিসের সামনে দাঁড়িয়ে থাকারর সময় ওই দুই ব্যক্তি তাঁর ওপর হামলা চালায়। লোহার রড দিয়ে তাঁকে আঘাত করা হয়েছে বলে অভিযোগ। মাথায় গুরুতর চোট রয়েছে। এই ঘটনায় উভয়পক্ষের মধ্যে হাতাহাতিতে বিজেপি কর্মীদের একজন জখম হয়েছেন বলে খবর।

- Advertisement -

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ভোলা এবং বাবলার পরিবারের সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীর পারিবারিক শত্রুতা ছিল। এনিয়ে আগেও আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছিল। এদিন ভোট পর্ব মিটে যেতেই, বিষয়টি রাজনৈতিক সংঘর্ষের আকার নেয়। খবর লেখা পর্যন্ত গোটা ঘটনায় ২ জন জখম হয়েছেন। এঁদের মধ্যে ওই ব্যবসায়ীকে এদিন রাতেই উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে জখম অবস্থায় চিকিৎসার জন্য উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

তৃণমূল কংগ্রেস সূত্রে খবর, বিষয়টি নিয়ে ফাঁসিদেওয়া থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। যদিও পুলিশ এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কিছু সংবাদ মাধ্যমকে কিছু জানায়নি। ফাঁসিদেওয়া সাংগঠনিক ১ নম্বর ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস সভাপতি মহম্মদ আইনুল হক জানিয়েছেন, এখানে কোনও গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয় নেই। বিজেপি কর্মীরা হামলা করেছেন।

অপরদিকে, বিজেপি যুব মোর্চার শিলিগুড়ি সাংগঠনিক জেলার এক নেতা বলেন, ভোটে হেরে যাওয়ার ভয় তৃণমূল কংগ্রেসের মধ্যে প্রকাশ পাচ্ছে। তাঁর আগে নেতাদের গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের বিষয়টিও প্রকট হয়েছে। রাতে ওই এলাকায় পুলিশের তরফে বিশেষ নজরদারি চালানো হচ্ছে।