কোচবিহারের ঘটনায় অমিত শা’কে দুষলেন মমতা

96

কলকাতা: চতুর্থ দফার ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে রাজ্যে। ইতিমধ্যেই বিভিন্ন জায়গা থেকে বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা সামনে আসছে। শনিবার সকাল থেকে উত্তপ্ত রয়েছে কোচবিহার। আধাসেনার গুলিতে ৪ তৃণমূল কর্মী-সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে। ঘটনার প্রসঙ্গে এদিন উত্তর ২৪ পরগনার হিঙ্গলগঞ্জ ও বাদুড়িয়ার সভা থেকে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা’কে দুষলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। পাশাপাশি তিনি জানান, গুলির বদলা নিতে হবে ভোট দিয়ে।

গুলি চালনার ঘটনা প্রসঙ্গে মমতা জানান, সিআরপিএফ তাঁর শত্রু নয়। সিআরপিএফকে বিজেপি’র হয়ে কাজ করতে হচ্ছে। পাশাপাশি তাঁর বক্তব্য, ‘প্রথম থেকে বলে আসছি হোম মিনিস্টার অমিত শা চক্রান্ত করছেন।’ তিনি জানান, বিজেপি হারবে জেনেই নানারকম অশান্তি করছে। তাঁদের কর্মীদের গুলি করে মারছে। সাধারণ মানুষকে মারছে। মমতার প্রশ্ন, ‘কী অন্যায় করেছিল এই চারজন?’ পাশাপাশি তাঁর বক্তব্য, সাধারণ মানুষের ওপর অত্যাচারের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনীকে কেন নির্দেশ দিচ্ছেন অমিত শা? পাশাপাশি নির্বাচন কমিশনের সাফাইয়ের যৌক্তিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে তৃণমূল সুপ্রিমোর বক্তব্য, ‘এতগুলো লোককে মেরে বলা হচ্ছে আত্মরক্ষা’। কর্মীদের উদ্দেশ্যে তৃণমূল নেত্রীর বক্তব্য, ভোট দিয়ে বদলা নিন।

- Advertisement -

প্রসঙ্গত, এদিন সকালেই কোচবিহারে ৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাঁর মধ্যে আধাসেনার গুলিতে ৪ তৃণমূল কর্মী-সমর্থকের মৃত্যু হয়েছে মাথাভাঙ্গার জোটপাটকি গ্রাম পঞ্চায়েতের ৫/১২৬ নম্বর বুথে। শীতলকুচিতে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে মারা গিয়েছেন আরও এক বিজেপি সমর্থক। ঘটনার পরই কলকাতায় তৃণমূল ভবনে সাংবাদিক বৈঠক ডাকে রাজ্য তৃণমূল নেতৃত্ব। সেখানে জানানো হয়, শীতলকুচির ওই বুথে বিজেপি ভোটদানে বাধা দিচ্ছিল। সিআরপিএফ ভোটারদের প্রভাবিত করছিল। এতে সামান্য বচসা হতেই আচমকা সিআরপিএফ লাঠিচার্জ করে ও গুলি চালায়। তাতে তৃণমূলের চার জনের মৃত্যু হয়। ইতিমধ্যেই এই ঘটনায় রিপোর্ট তলব করেছে কমিশন।