কলকাতা, ৬ জানুয়ারিঃ দিল্লির জওহরলাল নেহেরু বিশ্ববিদ্যালয় (জেএনইউ)-এর ঘটনার তীব্র নিন্দা করলেন এই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইট করে তিনি জানান, জেএনইউতে পড়ুয়া এবং শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ওপর বর্বরোচিত হামলার তীব্র নিন্দা করছি। এই ঘটনা ব্যখ্যা করার মতো ভাষা নেই। এটা গণতন্ত্রের পক্ষে লজ্জাজনক। দীনেশ ত্রিবেদির নেতৃত্বে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল সেখানে যাচ্ছে।

প্রসঙ্গত, রবিবার দিল্লির জেএনইউ ক্যাম্পাসে ঢুকে বহিরাগত দুষ্কৃতীরা তাণ্ডব চালায়। বাদ যায়নি গার্লস হস্টেলও। প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি, গতকাল সন্ধ্যা ৬টা নাগাদ আচমকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে দুষ্কৃতীরা ঢুকে পড়ে। মুখে কাপড় বেঁধে, লাঠি, পাথর, হাতে একের পর এক হস্টেলে হামলা চালায় তারা। ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। তাঁদের হাসপাতালে ভরতি করা হয়। দুষ্কৃতীদের আক্রমণে গুরুতর আহত হন ঐশী ঘোষ। তাঁকে এইমসে ভরতি করা হয়। ঘটনায় এসএফআই নেত্রী বলেন, ‘মুখোশধারী গুণ্ডাবাহিনী আমার ওপর নৃশংসভাবে হামলা চালায়।’ জেএনইউ ছাত্র সংসদের অভিযোগ, এই হামলার পিছনে আরএসএসের ছাত্র সংগঠন এবিভিপি-র হাত রয়েছে। যদিও অভিযোগ অস্বীকার করেছে এবিভিপি। বিশ্ববিদ্যালয়ে হামলার নিন্দার ঝড় উঠছে দেশজুড়ে। এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শা গোটা ঘটনা খতিয়ে দেখার জন্য দিল্লির পুলিশ কমিশনার অমূল্য পট্টনায়েককে নির্দেশ দেন। জয়েন্টস কমিশনার পদমর্যাদার এক আধিকারিককে দিয়ে জেএনইউ-র ঘটনার তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন তিনি।