নির্বাচনি জনসভায় ভ্যাকসিন নিয়ে মোদিকে কটাক্ষ মমতার

81

উত্তরবঙ্গ ব্যুরো: করোনার ভ্যাকসিন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করলেন মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তপন ও গঙ্গারামপুর আসনের দলীয় প্রার্থীদের সমর্থনে তপনের বাঘৈটের মাঠে নির্বাচনি জনসভায় ভ্যাকসিন প্রসঙ্গে তৃণমূল নেত্রী বলেন, ‘আবার কোভিড শুরু হয়েছে। আগেরবার কত টাকা খরচ হয়েছে। কত মানুষ মারা গিয়েছে। তবু আমরা সামলে নিয়েছিলাম। কিন্তু এবছর দিল্লি যদি ছয় মাস আগে থেকে ভ্যাকসিন দিত, তাহলে সংক্রমণ ছড়াত না। আজ আমি শুনলাম ইজরায়েলে কেউ আর মাস্ক পড়ছেন না। তাঁদের ভ্যাকসিনেশন হয়ে গিয়েছে। তাই নিশ্চিত হয়ে ঘুরে বেরাচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীকে বলা হল ভ্যাকসিন আমি পয়সা দিয়ে কিনে নেব। তাও দিলেন না। আর এখন যখন বেড়ে গিয়েছে, তখন জনগণের ওপর দোষ চাপিয়ে বলছে তুমি জোগাড় করে নাও। দেশের ভ্যাকসিন বিদেশে পাঠিয়ে দিয়েছে। তবু আমরা বাংলায় ১০ কোটি মানুষের মধ্যে ৪৩ লক্ষ ডোজ দিয়ে দিয়েছি। প্রতিদিন ৪০ হাজার ভ্যাকসিন দেওয়া হচ্ছে। আরও এক কোটি চাওয়া হয়েছে। পাশাপাশি তাঁর বক্তব্য, কেন্দ্র ভ্যাকসিন কিনলে ১৫০ টাকা, রাজ্য কিনলে ৪০০ টাকা আর প্রাইভেটে কিনলে ৬০০ টাকা লাগছে। প্রতিটি ভ্যাকসিন ইমারজেন্সি। এটা ব্যবসা করার জায়গা নয়। ভ্যাকসিন তো বিনা পয়সায় দেওয়ার কথা। কেন্দ্র সরকারের কাছে কি টাকা কম আছে। সব ব্যাংকের টাকা গচ্ছিত আছে। ওই টাকা দিয়ে ভ্যাকসিন দিলে আজ আর সংক্রমণ ছড়াত না।

পাশাপাশি জেলার সার্বিক উন্নয়ন নিয়ে তিনি জানান, ৩৭ কোটি টাকা ব্যয়ে তপন দিঘি সংস্কার করা হচ্ছে, সেখানে মাছ চাষ হবে। হিমঘর থেকে শুরু করে প্রসাশনিক কেন্দ্র গড়ে উঠবে। তপন দিঘি পর্যটন কেন্দ্র হবে। পর্যটন কেন্দ্রের মানচিত্রে স্থান পাবে। এখানকার বহু ছেলে-মেয়েদের কর্মসংস্থান হবে। তপনের পানীয় জলের সমস্যার কথা তুলে ধরে তিনি জানান, তপনে একটি গুরুত্বপূর্ণ সমস্যা হল পানীয় জল। পানীয় জলের সমস্যা মেটানোর জন্য করদহে গভীর নলকূপ বসানো হচ্ছে। সেখান থেকে নদীর জল তুলে পরিষ্কার করে খাবার জলের ব্যবস্থা করা হচ্ছে। এছাড়াও ২৯টি পানীয় জলের পরিকল্পনা চলছে। এদিন সকাল ১১টা ১৫ মিনিট নাগাদ মুখ্যমন্ত্রীর হেলিকপ্টার বাঘৈট মাঠে এসে নামে। তাঁকে দেখতে বহু মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা যায়।

- Advertisement -

অন্যদিকে, এদিন গনিদুর্গে কংগ্রেসের মাটিতে ঘাসফুল ফোঁটাতে জনসভা করেন তৃণমূল সুপ্রিমো। সামসী কলেজ ময়দানে রতুয়ার তৃণমূল প্রার্থী সমর মুখোপাধ্যায় ও মালতীপুরের তৃণমূল প্রার্থী রহিম বক্সির সমর্থনে এদিনের সভা করেন তিনি। জনসভায় মমতার দাবি, কোভিডের ঝড় সামলাতে পারবে তৃণমূলই। কিষাণ জাতির জন্য টাস্ক ফোর্স-এর কথাও বলেন তিনি। পাশাপাশি তিনি বলেন, ‘এই নির্বাচন বাংলাকে বাঁচানোর নির্বাচন। আমরা বাংলাকে গুজরাত বানাতে দেব না।’ মালদার আমচাষিদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমকন্যা মালদাকে আপনারা তৃণমূলের হাতে তুলে দিন।’ প্রান্তিক চাষিরা মাসে ৫,০০০ টাকা করে পাবেন বলেও ঘোষণা করেন তিনি৷ এছাড়া পড়ুয়াদের ১০ লক্ষ টাকার ক্রেডিট কার্ডের প্রতিশ্রুতিও দেন। তিনি জানান, আগামী ৫ তারিখ থেকে সবাইকে ভ্যাকসিন দেওয়া হবে।