গোরুর গাড়িতে চেপে ভোট প্রচারে তৃণমূল প্রার্থী

108

বর্ধমান: পেট্রোল-ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে ক্ষোভ ছড়িয়েছে জনমানসে। ভোট প্রচারে সেই ক্ষোভকেই হাতিয়ার করেলেন পূর্ব বর্ধমানের পূর্বস্থলী উত্তরের তৃণমূল কংগ্রেস প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায়। মঙ্গলবার কখনও গরুর গাড়িতে আবার কখনও মোষের গাড়িতে চেপেই ভোটের প্রচারে সারলেন তিনি। তার সঙ্গে ছিল আস্ত গ্যাস সিলিন্ডার। বার্তা দিলেন কেন্দ্রের মোদি সরকারের জন্য গাড়িতে চাপার দিন এবার শেষ হতে চলছে।ফিরে আসছে গোরুর গাড়ি ও মোষের গাড়িতে চড়ে যাতায়াত ও কাঠের উনুনে রান্নার দিন। তৃণমূল প্রার্থীর এমন অভিনব ভোট প্রচার সাড়া ফেলেছে জনমানসে।

এদিন সকালে পূর্বস্থলীর মেরতলার চন্ডীপুর এলাকা থেকে অভিনব কায়দায় প্রচার শুরু করেন প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায়। প্রচারের সামনের সারিতে ছিলেন দলের বেশ কয়েকজন যুব কর্মী। তারা ফুটবল পায়ে নিয়ে প্রচারে অংশ নেন। এই যুবকদের পিছনেই মাথায় পাগড়ি বেঁধে গোরুর গাড়িতে বসেছিলেন তৃণমূল প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায়। নির্বাচনি প্রচারে গিয়ে সিপিএম প্রার্থীকে কোন গুরুত্বই দিতে চাইলেন না তৃণমূল প্রার্থী।

- Advertisement -

গোরুর গাড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার চাপিয়ে নিয়ে প্রচার প্রসঙ্গে প্রার্থী তপন চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘কেন্দ্রের মোদি সরকারের দৌলতে পেট্রোল-ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের অস্বাভাবিক মূল্য বৃদ্ধি ঘটেছে। গ্যাসের উনুনে রান্না করতে গিয়ে গৃহস্থের মাথায় হাত পড়ছে। একই কারণে বাইক ও অন্য গাড়ি চেপে বের হওয়ার সাধ থাকলেও আর সাধ্যে কুলোচ্ছে না গাড়ি মালিকদের। বাংলা সহ গোটা দেশের মানুষ মোদি সরকারের এই কৃত কর্মের জন্য ভোগান্তির শিকার। সাধারণ মানুষের স্বার্থের পরিপন্থী মোদি সরকারের এমন কাজের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতেই এমন প্রচার কর্মসূচীর আযোজন করা হয়েছে।’

প্রচারের ফাঁকে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তপনবাবু বিজেপিকে উদ্দেশ্যে করে বলেন, ’এই আসনে ওদের প্রার্থীর নাম এখনও ঘোষণাই হয়নি। প্রার্থী ঘোষণা হোক। তারপরেই পুরোনো বিজেপি ও নব্য বিজেপির মারপিট শুরু হয়ে যাবে। বুঝতে পারবে কেমন মারামারি হবে।’ একইসঙ্গে তপন বাবু দাবি করেন, ’২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে সিপিএমের লোকেরা বিজেপিকে ভোট দিয়েছিল। সিপিএম এবার ভাবছে সেই ভোট ফেরত নেবে।’

এই প্রসঙ্গে সিপিএম প্রার্থী প্রদীপ সাহা বলেন, ‘এইবারের নির্বাচনে তৃণমূল-বিজেপি দেখবে কত ধানে কত চাল। নিজের জয়ের ব্যাপারে ১০০ শতাংশ নিশ্চিত বলে প্রদীপবাবু এদিন মন্তব্য করেন।’