সঙ্গী আধাসেনা, মানুষকে অভয় দিচ্ছে পুলিশ

97

রায়গঞ্জ: রায়গঞ্জ ব্লকের বিভিন্ন গ্রামে গিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সঙ্গে নিয়ে ভোটারদের অভয় বার্তা দেওয়ার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের সঙ্গে বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কথা বলছেন পুলিশ আধিকারিকেরা। রায়গঞ্জ ব্লকের বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের সিজগ্রাম, রাড়িয়া, বরুয়া, মালঞ্চা, কানাইপুর সহ বিভিন্ন গ্রামে রুটমার্চ করার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেন তাঁরা। গত পঞ্চায়েত নির্বাচনে বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের বিভিন্ন গ্রামে ভোটে ব্যাপক সন্ত্রাসের অভিযোগ উঠেছিল শাসকদলের বিরুদ্ধে। ভোটের দিন রাড়িয়া, গোলইসরা, তাহেরপুর সহ বেশ কয়েকটি গ্রামে বোমাবাজি ও সন্ত্রাসের কারণে ব্যাপক উত্তেজনা ছড়ায়। সাধারণ মানুষ আতঙ্কিত হয়ে পড়ে। সেই ঘটনা যাতে আর পুনরাবৃত্তি না হয় এবং সুষ্ঠুভাবে যাতে ভোট প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয় সেজন্য প্রথম থেকেই এবারে সতর্ক পুলিশ প্রশাসন। কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সর্বতভাবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছে রায়গঞ্জ থানার পুলিশ। পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর এই ভূমিকায় সন্তুষ্ট রায়গঞ্জের ভোটাররা।

বরুয়া গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রধান ধর্মেশ্বর বর্মন জানান, গত পঞ্চায়েতের ভোটের আতঙ্ক এখনও গ্রামের মানুষের মধ্যে আছে। তাই গ্রামের মানুষকে অভয় দিতে গতকাল ও আজ কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে গ্রামগুলিতে রুট মার্চ করে পুলিশ আধিকারিকেরা। তাঁরা সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলেছেন। গত ২৫ তারিখে উত্তর দিনাজপুর জেলায় কেন্দ্রীয় বাহিনী আসার পর স্থানীয় থানার পুলিশ আধিকারিকেরা গ্রামগুলিতে রুটমার্চ শুরু করেছে। তাঁরা গ্রামবাসীদের কাছে জানতে চান কেউ কোনও রকম হুমকি বা অশান্তি সৃষ্টি করছে কিনা বা ভয় দেখাচ্ছে কিনা। পাশাপাশি তাদের নির্ভয়ে ভোটদান করার জন্য আশ্বস্ত করেন। পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনীর এই ভূমিকায় খুশি প্রত্যন্ত গ্রামের ভোটাররা।

- Advertisement -

তাহেরপুরের দীপক বর্মন বলেন, ‘এখানে কোনও অশান্তি বা ভয় দেখানো এই ধরনের ঘটনা ঘটেনি। এলাকায় কেন্দ্রীয় বাহিনীর রুটমার্চের ফলে আরও সাহস বাড়ল। রাড়িয়ার বাসিন্দা সুদেব সূত্রধরের দাবি, পঞ্চায়েত ভোটের ঘটনা আমরা আর পুনরাবৃত্তি দেখতে চাই না। মানুষ চায় শান্তিপূর্ণ ভাবে ভোট হোক।’ কেন্দ্রীয় বাহিনী গ্রামে আসায় অনেকটাই সাহস হল। এদিন গ্রামবাসীদের কেন্দ্রীয় বাহিনীদের পাশাপাশি পুলিশ আধিকারিকেরা জানায়, কোনও সমস্যা হলে থানায় বা প্রশাসনকে যেন ফোন করে জানায়। যদিও গত পঞ্চায়েত ভোটে গন্ডগোল হলেও লোকসভার ভোট হয়েছে শান্তিপূর্ণভাবে।