নালা দখলে প্রতিযোগিতা আলিপুরদুয়ারে

284

মণীন্দ্রনারায়ণ সিংহ, আলিপুরদুয়ার : আলিপুরদুয়ার শহরের বিভিন্ন জলাশয়ে পর এবারে নিকাশিনালা দখলের প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে। নালার ওপর পিলার বসিয়ে পুরু ঢালাই ও ইটের গাঁথুনি দিয়ে দোকানপাট, ঘরবাড়ি, পার্কিং জোন তৈরি করছে দখলদাররা। অভিযোগ, সবকিছু দেখেশুনেও যেন নির্বিকার পুরসভা ও প্রশাসন। নালার ধারে বসবাসকারী কিছু বাসিন্দা ছাড়াও এতে প্রভাবশালীদের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ। আলিপুরদুয়ারের মহকুমা শাসক বিপ্লব সরকার বলেন, বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখব। পুরসভার প্রশাসকমণ্ডলীর চেয়ারম্যান মিহির দত্ত বলেন, নালার ওপর কোথাও কোনও নির্মাণকাজ হতে পারে না। বিষয়টি খতিয়ে দেখে শীঘ্র ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

বাসিন্দাদের অভিযোগ, শহরের গুরুত্বপূর্ণ পার্ক রোডে রাস্তার ধারে পূর্ত দপ্তরের জায়গা ও নিকাশিনালা অনেকেই নিজেদের দখলে নিয়েছেন। কংক্রিটের নির্মাণ করে সেখানে কেউ গাড়ি পার্কিং করছেন। করোনা সংকটের আগে প্রতিদিন বহু শিশু ও মায়েরা ওই পার্কে ভিড় করতেন। কাছেই জেলা প্রশাসনের আবাসন হয়েছে। জেলা প্রশাসনের কর্তাদের নাকের ডগায় বেআইনি নির্মাণ চলছে। শহরের প্যারেড গ্রাউন্ড সংলগ্ন নেতাজি রোডে নিকাশিনালার ওপর দখলদাররা কয়েক মাস ধরে একের পর এক নির্মাণকাজ করেই চলেছে। রাতারাতি নালার খোলা মুখ কংক্রিটে ঢেকে যাচ্ছে। শহরের পাশাপাশি শহরতলির বিস্তীর্ণ এলাকার বৃষ্টির জল ওই নালা দিয়ে বয়ে গিয়ে কালজানি নদীতে চলে যায়। নালার ওপর একের পর এক অবৈজ্ঞনিক উপায়ে কংক্রিটের ঢালাইয়ের নির্মাণকাজ চলতে থাকায় কখনও ভারী বৃষ্টি হলে নালার জল উপচে বিপত্তি হতে পারে। এছাড়া, যেভাবে বিশাল এলাকায় ঢালাইয়ের আস্তরণে নালা ঢেকে দেওয়া হচ্ছে, তাতে নালা সাফাইয়ের অসুবিধা হবে। অনেক জায়গায় নালার একাংশ নিজেদের দখলে নিয়ে কেউ কেউ পাকা ঘরবাড়িও করেছেন।

- Advertisement -

পরিবেশপ্রেমী অমল দত্ত বলেন, নালা, ফুটপাথ, জলাশয় দখলদারির ফল আগামী প্রজন্মকে ভুগতে হবে। শহরের সুস্থ স্বাভাবিক পরিবেশ নষ্ট হলে পরিণতি হবে ভযংকর। বেআইনি নির্মাণ বন্ধ করতে পুরসভা ও প্রশাসনের শীঘ্রই কড়া ব্যবস্থা গ্রহণ করা উচিত। সম্প্রতি শহরের প্যারেড গ্রাউন্ড এলাকায় দুটি বেআইনি নির্মাণ ভেঙে দিয়েছে পুরসভা ও মহকুমা প্রশাসন। কিন্তু এরপরেও শহরে দখলদারি বন্ধ হয়নি। প্যারেড গ্রাউন্ড থেকে কিছুটা এগোলে নেতাজি রোডের ধারে নিকাশিনালার ওপর রাতের অন্ধকারে নতুন নতুন দোকানপাট, ঘরবাড়ি তৈরির কাজ চলছে। এই ঘটনায় বিরোধীরা শাসকদলকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়েছে। আলিপুরদুয়ারের বিধায়ক সুমন কাঞ্জিলালের অভিযোগ, শাসকদলের মদত ছাড়া শহরের নালা, পূর্ত দপ্তরের রাস্তার একাংশ দখল করে একের পর এক বেআইনি নির্মাণ হতে পারে না।