নিম্নমানের গ্রাভেল রাস্তা তৈরির অভিযোগ

266

বুল নমদাস, নয়ারহাট: নিম্নমানের গ্রাভেল রাস্তা তৈরির অভিযোগ উঠল এলাকায়। মাথাভাঙ্গা-১ ব্লকের হাজরাহাট-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের অন্তর্গত দক্ষিণ ভাঙামোড়ের শিলটারি এলাকার ঘটনা।

শনিবার স্থানীয়রা রাস্তার কাজ বন্ধ করে দেন। এদিকে তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত এই গ্রাম পঞ্চায়েতের রাস্তার কাজে নিম্নমানের অভিযোগ ওঠায় কিছুটা হলেও অস্বস্তি বাড়িয়েছে স্থানীয় প্রশাসন ও শাসকদলের নেতাদের। যদিও রাস্তার কাজ এখনও পুরোপুরি শেষ হয়নি বলে দাবি করেছেন তাঁরা।

- Advertisement -

লকডাউনের আগে ওই এলাকায় গ্রাভেল রাস্তাটির কাজ শুরু হয়। গ্রাম পঞ্চায়েতের অর্থে প্রায় সাড়ে তিন লক্ষ টাকা ব্যয়ে ৩০০ মিটার দীর্ঘ ও ১০ ফুট চওড়া এই রাস্তাটির কাজ শুরু হয়। কিন্তু নিম্নমানের রাস্তা তৈরির অভিযোগ তুলে স্থানীয়রা এদিন রাস্তার কাজ বন্ধ করে দেন।

আরও পড়ুন: ন্যায্য র‍্যাশন চাওয়ায় গ্রাহকের ওপর হামলার অভিযোগ

স্থানীয় যুবক সুশান্ত শীলশর্মা ও বিশ্বজিৎ সরকারের অভিযোগ, ৬ ইঞ্চির বদলে রাস্তার উপর ১ ইঞ্চি পুরু বালি ও পাথর দেওয়া হয়েছে। সামান্য খুঁড়তেই রাস্তার উপর ঘাস বেরিয়ে পড়ছে। রাস্তায় জলও জমছে। রাস্তাটি তৈরি হলেও কিছুদিনের মধ্যেই আমরা ভোগান্তির শিকার হব। রাস্তাটি তৈরির দায়িত্বে যাঁরা রয়েছেন তাঁদের বলেও কোনও লাভ না হওয়ায় কাজ বন্ধ করেছি। রাস্তার কাজ ভালো হোক এই দাবি করছি।

এই বিষয়ে গ্রাম পঞ্চায়েত প্রধান শেফালী বর্মন বলেন, বিষয়টি জানা নেই। খোঁজ নিয়ে দেখা হবে। এলাকার পঞ্চায়েত সদস্য মনেশ্বর বর্মন স্থানীয়দের অভিযোগকে সত্য বলে মেনে নিলেও সংশ্লিষ্ট গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান তথা তৃণমূল নেতা হাসেম আলির দাবি, ওই রাস্তার কাজ এখনও শেষ হয়নি। তাই এই মুহূর্তে রাস্তা তৈরির মান নিয়ে প্রশ্ন তোলা উচিত নয়।

আরও পড়ুন: হাতির হানায় ক্ষতিগ্রস্ত ভুট্টাখেত

গ্রাম পঞ্চায়েতের নির্মাণ সহায়ক মলয় অধিকারী বলেন, লকডাউনের জেরে উপকরণ ঠিকমতো পাওয়া না যাওয়ায় রাস্তার কাজে সমস্যা হচ্ছে। কাজও বাকি রয়েছে। ফলে রাস্তার কাজ নিম্নমানের হচ্ছে একথা বলা ঠিক নয়। কাজ বাকি রয়েছে, তাই অভিযোগ তোলা ঠিক নয় বলে দাবি সংশ্লিষ্ট কাজের ঠিকাদার অধীর বর্মনেরও।