নিয়ম না মেনে গাছ কেটে বিক্রির অভিযোগে বিদ্ধ তৃণমূল পরিচালিত গ্রাম পঞ্চায়েত

102

বর্ধমান: বেআইনিভাবে একের পর এক গাছ কেটে পাচারের অভিযোগ। কাঠগড়ায় তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত জামালপুর-২ গ্রাম পঞ্চায়েত। এই পরিস্থিতিতে ওই গ্রাম পঞ্চায়েতেরই একাংশ নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানিয়ে সোমবার পঞ্চায়েত প্রধান সহ জেলা প্রশাসনের বিভিন্ন দপ্তরে চিঠি পাঠিয়েছে। ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে পূর্ব বর্ধমানের জামালপুরে।

জামালপুর-২ পঞ্চায়েতের চার সদস্য অভিযোগ করে জানান, বনদপ্তর এবং পূর্ত দপ্তরের কোনও প্রকার অনুমতি ছাড়াই হরেকৃষ্ণ কোঙার সেতু সংলগ্ন পূর্ত সড়কের দু’ধারে থাকা গাছ কাটা হয়েছে। এরপর কোনও প্রকার টেন্ডার ছাড়াই তা বিক্রি করা হয়েছে। ঘটনায় লক্ষাধিক টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। এবিষয়ে, পঞ্চায়েত সদস্য হারাধন পাত্র ও সঞ্চয়িতা বাগ বলেন, ‘পঞ্চায়েত কর্তাদের পরিচালনাধীনে বেআইনি ভাবে ’বৃক্ষ নিধন’ হচ্ছে। এই অপরাধ যারা করছেন তাঁদের কঠোর শাস্তি হওয়া উচিত।’

- Advertisement -

অভিযোগ প্রসঙ্গে জামালপুর-২ পঞ্চায়েতের উপ-প্রধান উদয় দাস বলেন, ‘চলতি মাসের ১১ তারিখ ৩৪ টি গাছ কাটার বিষয়ে ‘রেজোলিউশন’ হয়। কিন্তু গাছ কাটা সংক্রান্ত সমস্ত নিয়ম মানা সম্ভব না হওয়ায় সেবিষয়ে আর পা বাড়ানো হয়নি। তবে ওই গাছগুলির পাহারাদার অর্থাৎ পাট্টাদার নিমাই মালিক নিজ দায়িত্বে গাছগুলি কেটেছেন। এমনকি ওইসব গাছ বিক্রি করে ৩৫ হাজার টাকা এদিন পঞ্চায়েত অফিসে জমা দিয়েছেন তিনি। তবে, পঞ্চায়েত সহ অন্য সমস্ত সংশ্লিষ্ট দপ্তরের লিখিত অনুমতি ছাড়াই একজন পাহারাদার কীভাবে এই গাছগুলি কেটে বিক্রি করলেন তার কোনও উত্তর অবশ্য দিতে পারেননি উপ-প্রধান।

জামালপুর ব্লকের বিডিও শুভঙ্কর মজুমদার বলেন, ‘অভিযোগের প্রেক্ষিতে তদন্ত করার জন্যে পুলিশকে বলা হয়েছে। গাছ কাটার বিষয়ে কোনও অনিয়ম থাকলে আইন মাফিক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’