উত্তরবঙ্গ মেডিকেলে জটিল অস্ত্রোপচার, শিশুর গলা থেকে সুপারির টুকরো বের করলেন চিকিৎসকরা

211

শিলিগুড়ি: জটিল অস্ত্রোপচার করে এক শিশুকে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরিয়ে আনলেন উত্তরবঙ্গ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎকরা। শিশুটির শ্বাসনালিতে সুপারির টুকরো আটকে গিয়েছিল। শিলিগুড়ির আশিঘরের এক বাসিন্দা সোনালি দাস নামে বছর ছয়েকের শিশুটিকে নিয়ে মেডিকেলে আসেন। সেই সময় প্রচণ্ড শ্বাসকষ্ট হচ্ছিল শিশুটির। পরিবারের সদস্যদের জিজ্ঞাসাবাদ করে মেডিকেল কলেজের নাক-কান-গলা (ইএনটি) বিভাগের চিকিৎসকরা জানতে পারেন, মুখে সুপারি থাকা অবস্থায় শিশুটির গালে চড় মারে কেউ একজন। তারপর থেকেই গলায় সুপুরি আটকে গিয়ে শিশুটির শ্বাসকষ্ট শুরু হয়। হাসপাতালে শিশুটির সিটি স্ক্যান করা হলে শ্বাসনালিতে সুপারি আটকে থাকার বিষয়ে নিশ্চিত হন চিকিৎসকরা। শিশুটিকে তৎক্ষনাৎ পেডিয়াট্রিক ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

ডাঃ শেখর বন্দ্যোপাধ্যায় সহ ইনএনটি বিভাগের চারজন চিকিৎসকের টিম শিশুটির চিকিৎসার দায়িত্ব নেন। সিদ্ধান্ত হয় অপটিকাল ফরসেপের সাহায্যে শিশুটির রিজিড ব্রঙ্কোস্কপি করা হবে। সেই মতো ১৮ মার্চ অপারেশন করে এন্ডোস্কোপিক পদ্ধতিতে শ্বাসনালী থেকে সুপারির টুকরোটি বের করেন চিকিৎসকরা। অস্ত্রোপচারের সময় শিশুটির অ্যানাস্থেশিয়ার দায়িত্বে ছিলেন অধ্যাপক ডাঃ তারাপদ দাস। ডাঃ শেখর বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, মেডিকেল কলেজে বর্তমানে পেডিয়াট্রিক ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটে উন্নত পরিকাঠামো রয়েছে। যার জন্য দ্রুত শিশুটির প্রয়োজনীয় চিকিৎসা করা সম্ভব হয়েছে। বর্তমানে শিশুটি সুস্থ রয়েছে। দু-তিনদিনের মধ্যেই তাকে ছুটি দিয়ে দেওয়া হবে। চিকিৎসকদের এই তৎপরতায় শিশুটির প্রাণে বেঁচে যাওয়ায় খুশি তার পরিবারের সদস্যরা।

- Advertisement -