গাছ কাটা নিয়ে দ্বন্দ, নিজের দলের কর্মীদের হাতেই প্রহৃত তৃণমূল কর্মী

91

বর্ধমান: গাছ কাটার প্রতিবাদ করায় দলেরই কর্মীদের হাতে নির্মম ভাবে প্রহৃত হলেন এক তৃণমূল কর্মী। আক্রান্তের নাম আব্দুল মতিন শেখ। তার বাড়ি পূর্ব বর্ধমানের আবুজহাটি ২ পঞ্চায়েতের কাঁটাগোড়িয়া গ্রামে। মারধরের ঘটনায় জড়িত গ্রামেরই শাসকদলের ৩ কর্মীর  নামে জামালপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করেছেন প্রহৃত ওই তৃণমূল কর্মী। দায়ের হওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। এই ঘটনা তৃণমূলের গোষ্ঠী দ্বন্দের প্রকাশ বলেই জানিয়েছেন স্থানীয়রা। আর তা মেনেও নিয়েছেন জামালপুরের তৃণমূলের দুই গোষ্ঠীরই নেতারা। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, কয়েকদিন আগে আবুজহাটির কাঁটাগোড়িয়া গ্রামের সেচখালের ধারে থাকা ২-৪ টি গাছ কাটা নিয়ে দু’গোষ্ঠীর  বিবাদ বাঁধে। এক গোষ্ঠী আবুজহাটী ২ পঞ্চায়েতের  উপপ্রধান সমর পালের অনুগামী । অপর গোষ্ঠী ব্লক তৃণমূলের সভাপতি তথা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি মেহেমুদ খানের অনুগামী। তারা সমরপালের অনুগামীদের বিরুদ্ধে বেআইনি ভাবে গাছ কাটার অভিযোগ এনে সেচ দপ্তর সহ প্রশাসনের  নানা মহলে অভিযোগ জানায়।

মেহেমুদ খাঁনের অনুগামী আব্দুল মতিন শেখকে  বুধবার বিকেলে উপপ্রধান সমর পালের অনুমাগীরা ব্যাপক মারধর করে বলে অভিযোগ । মারধরে সংজ্ঞা হারিয়ে আব্দুল মতিন গ্রামের একটি জমির ধারে পড়েছিলেন। তাকে উদ্ধার করে জামালপুর ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হয়। এই বিষয়ে উপপ্রধান সমর পাল বলেন, ‘পঞ্চায়েতের গাছ গ্রামের উন্নয়নের কাজে লাগানোর জন্য কাটার অনুমতি দেওয়া হয়েছিল। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের কারণে গাছ কাটতে বাধা সৃষ্টি করা হয়। গ্রামবাসীরা তার প্রতিবাদ করেছে। কেউ কাউকে মারধর করেনি। সব সাজানো ঘটনা। মিথ্যা অভিযোগ এনে গ্রামের পরিবেশ উত্তপ্ত করা হচ্ছে।‘ এসডিপিও (বর্ধমান দক্ষিণ) আমিনুল ইসলাম খানের নেতৃত্বে বৃহস্পতিবার ওই গ্রামে দু’পক্ষকে নিয়ে আলোচনা হয়েছে। এখন গ্রামের পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

- Advertisement -