পর্যটনক্ষেত্রে সরকারি নির্দেশিকা ঘিরে ছড়াচ্ছে বিভ্রান্তি

131

শিলিগুড়ি: বাঙালির পায়ের তলায় সর্ষে। দু’দিনের ছুটিতেও বেরিয়ে পড়তে মন চায় তাদের। তবে শুধু বাঙালি কেন, কোভিড পরিস্থিতিতে একটানা ঘরে থাকতে থাকতে অনেকেই একটু বেরিয়ে আসতে চাইছেন। এই পরিস্থিতিতে পর্যটকদের দিকে তাকিয়ে বিধিনিষেধ জারি করেছে রাজ্য। কিন্তু এই বিধিনিষেধ ঘিরেই দেখা দিয়েছে বিভ্রান্তি। দার্জিলিংয়ে কোনও পর্যটককে ঢুকতে গেলে ৭২ ঘণ্টা আগে করানো কোভিড আরটি পিসিআর নেগেটিভ রিপোর্ট বা ভ্যাকসিনের দুটো ডোজের সংশাপত্র বাধ্যতামূলক করেছে প্রশাসন। আবার জলপাইগুড়ি জেলায় যেতে গেলে ৪৮ ঘণ্টা আগে করানো কোভিড নেগেটিভ রিপোর্ট দেখাতে হবে। এখানেই বিভ্রান্তি ছড়িয়েছে। পর্যটকরা সাধারণত একটি সার্কিট ধরে ঘুরতে আসেন। সবার ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ নেওয়া হয়নি। ফলে ঘুরতে আসার ক্ষেত্রে অনেকেই আরটিপিসিআর টেস্ট রিপোর্টকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে করা সেই রিপোর্ট নিয়ে দার্জিলিংয়ে ঢুকলেও পাহাড় থেকে জলপাইগুড়ি জেলার ডুয়ার্সে ঢুকতে গেলেই সেই রিপোর্ট আর কাজে লাগছে না। তখন ৪৮ ঘণ্টা আগে করানো নতুন রিপোর্ট দাখিল করতে হবে বলে নিয়মে বলা হচ্ছে। এতেই সমস্যা দেখা দিয়েছে। পর্যটকরা ঘুরতে এসে কীভাবে টেস্ট করাবেন, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠছে। এই পরিস্থিতিতে পর্যটন কেন্দ্রীক একটাই নির্দেশিকা জারি করার দাবি তুলেছে পর্যটন সংস্থাগুলো।

হিমালয়ান হসপিটালিটি অ্যান্ড ট্যুরিজম ডেভলপমেন্ট নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক সম্রাট সান্যাল বলেন, ‘নির্দেশিকা নিয়ে বিভ্রান্তি রয়েছে। বিষয়টি পর্যটনমন্ত্রী ইন্দ্রনীল সেনের নজরে আনা হয়েছে।’ অন্যদিকে, গতকালের মতো এদিনও সিকিমে ঢুকতে গিয়েও সমস্যার শিকার হয়েছেন পর্যটকরা। অনেক পর্যটকই সিকিমে ঢুকতে না পেরে ফিরে এসেছেন।

- Advertisement -