কুমারগঞ্জে প্রার্থী নির্বাচন নিয়ে ষড়যন্ত্রের অভিযোগ কংগ্রেসের

84

বালুরঘাট: ষড়যন্ত্র হয়েছে। তৃণমূল থেকে এনে একজনকে প্রার্থী করা হয়েছে কুমারগঞ্জে। এমনই দাবি করে তড়িঘড়ি জেলা কমিটির সভা ডেকে প্রার্থী বদলের দাবি তুলতে শুরু করেছেন খোদ কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী। সিপিএমের একাংশ আগেই কুমারগঞ্জ আসনে প্রার্থী দিতে চেয়ে দাবি জানাতে শুরু করেছিল। কিন্তু তা প্রদেশের রাজ্য নেতৃত্বের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ওই আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা ছিল কংগ্রেসের। আগেই জেলার ছয়টি আসনের মধ্যে বামেদের ভাগে পরা পাঁচটি আসনেই প্রার্থী ঘোষণা করা হয়েছে। কিন্তু কুমারগঞ্জ আসনটিতে শনিবার রাতে প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছেন কংগ্রেসের কেন্দ্রীয় নেতারা। ওই আসনে প্রার্থী করা হয়েছে হরিরামপুরের বাসিন্দা নার্গিস বানু চৌধুরীকে।

২০০৮-২০১৩ সালের দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের একমাত্র কংগ্রেস সদস্যা তথা বিরোধী দলনেত্রী ছিলেন নার্গিস বানু। তারপর থেকেই তাঁর সঙ্গে দলের যোগাযোগ নেই বলেই দাবি কংগ্রেস নেতাদের। তাদের আরও দাবি, বরং ২০১৬ সালে নার্গিসের পরিবার তৃণমূলের হয়ে প্রচারে নেমেছিল হরিরামপুরে। এবারে নার্গিসকে আচমকা কুমারগঞ্জ এনে সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী করে দেওয়ার পিছনে ষড়যন্ত্র দেখছে জেলা কংগ্রেস। গতকাল রাতে প্রার্থী ঘোষণা হওয়ার পর থেকে সোশ্যাল মিডিয়াজুড়ে কংগ্রেস কর্মী-নেতারা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেছেন। গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে জর্জরিত হলেও প্রার্থী বদলের দাবিতে কংগ্রেসের প্রায় সমস্ত গোষ্ঠীই একই সুরে কথা বলতে শুরু করেছে। ফলে কেন্দ্রীয় বা প্রদেশ কমিটির নেতারা জেলা নেতৃত্বকে কিভাবে সামলায়, নাকি জেলার ক্ষোভ দেখে প্রার্থী বদল হয়, এখন সেটাই দেখার।

- Advertisement -

কংগ্রেস জেলা সভাপতি অঞ্জন চৌধুরী বলেন, ‘যে প্রার্থীর নাম ঠিক হয়েছে, তাতে জেলার কোনও মতামত বা সুপারিশ নেই। কারা, কেন এমন প্রার্থী দাঁড় করিয়েছে জানা নেই। আমরা প্রার্থী বদলের দাবি জানাচ্ছি।’