বিজেপি নেতার বাড়িতে কংগ্রেস প্রার্থী, তুঙ্গে জল্পনা

168
শালকুমারহাটে বিজেপি নেতার বাড়িতে কংগ্রেস প্রার্থী দেবপ্রসাদ রায়।

শালকুমারহাট: শনিবার সন্ধ্যায় শালকুমারহাটের বিজেপির এক জেলা নেতার বাড়িতে হাজির হন আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রে সংযুক্ত মোর্চা মনোনীত কংগ্রেস প্রার্থী দেবপ্রসাদ রায়। আর এতেই শুরু হয়েছে জল্পনা। যদিও এটাকে সৌজন্য সাক্ষাৎ বলে উভয় দলের নেতারা জানিয়েছেন।

আলিপুরদুয়ার-১ ব্লকের শালকুমারহাট এলাকায় এদিন ভোটের প্রচারে আসেন দেবপ্রসাদ রায়। এই এলাকায় বাড়ি বিজেপির জেলা কমিটির আমন্ত্রিত সদস্য লক্ষ্মীকান্ত সরকারের। সূত্রের খবর, রাজনৈতিক মতাদর্শ ভিন্ন হলেও অনেক আগে থেকেই দেবপ্রসাদের সঙ্গে লক্ষ্মীকান্তর ব্যক্তিগত সম্পর্ক রয়েছে। সেই সূত্রেই এদিন তাঁর বাড়িতে ভোট চাইতে যান দেবপ্রসাদ। সেখানে প্রায় আধ ঘণ্টা ছিলেন কংগ্রেস প্রার্থী। অনেক বিষয় নিয়েই আলোচনা হয়। প্রার্থী ওই বাড়িতে চাও খান। এনিয়ে রাজনৈতিক মহলে নানা চর্চা শুরু হয়েছে।

- Advertisement -

আলিপুরদুয়ার কেন্দ্রে প্রথমে বিজেপির প্রার্থী হিসেবে বিশিষ্ট অর্থনীতিবিদ অশোক লাহিড়ীর নাম ঘোষণা করা হয়। কিন্তু এই হেভিওয়েট প্রার্থীকে চেনেন না বলে বিজেপির জেলা সভাপতি গঙ্গাপ্রসাদ শর্মা প্রকাশ্যে জানিয়ে দেন। পরে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের ধমক খেয়ে অশোক লাহিড়ীকে জেলা বিজেপি মেনে নিলেও এই কেন্দ্রে প্রার্থী বদল করা হয়। এখন বিজেপির প্রার্থী হয়েছে সুমন কাঞ্জিলাল। সূত্রের খবর, প্রার্থী নিয়ে এই ডামাডোল পরিস্থিতিতে বিজেপির একাংশ ভোটে থাবা বসাতে পারেন প্রাক্তন বিধায়ক তথা এবারের কংগ্রেস প্রার্থী দেবপ্রসাদ রায়। সেই সূত্রেই এদিন তিনি বিজেপি নেতার বাড়িতে গিয়েছেন কি না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

যদিও এপ্রসঙ্গে দেবপ্রসাদ রায় বলেন, ‘এই কেন্দ্রে যত ভোটার আছে, আমি সকলের কাছেই ভোট চাইতে যাব। দলমত নির্বিশেষে আমি সবার কাছেই পৌঁছোব। আর কোনও ভোটারের কাছে যেতে প্রার্থীকে কেউ বাধা দিতে পারে না। সেই ভোটার ভোট দেবে কী না সেটা পরের প্রশ্ন। কোথাও কোনও লক্ষ্মণরেখা টানা নেই। প্রতিটি দলের সমর্থকদের কাছেই প্রতিটি দলের প্রার্থী আসতেই পারেন।’

এদিকে বিজেপি নেতা লক্ষ্মীকান্ত সরকার বলেন, ‘উনি সৌজন্য সাক্ষাতের জন্য আমার বাড়িতে আসতেই পারেন। এখানে প্রায় আধ ঘণ্টা ছিলেন, চা খেয়েছেন। উনি প্রাক্তন বিধায়ক। তাই ওঁনার সঙ্গে আগের থেকেই আমার পরিচিতি রয়েছে। তাছাড়া অন্য দলের প্রার্থীও যদি আমার বাড়িতে আসতে চান, আমি স্বাগত জানাব। তবে আমি নিজেও একজন বিজেপির দায়িত্বপ্রাপ্ত জেলা নেতা। তাই আমার রাজনৈতিক অবস্থান বিজেপিকে নিয়েই এবং আমি আশাবাদী এবারের নির্বাচনে এই কেন্দ্রে বিজেপির প্রার্থীই বিপুল ভোটে জিতবেন।’