যুব সংগঠনকে মজবুত করতে উদ্যোগী কংগ্রেস

218

গাজোল: আগামী বিধানসভা নির্বাচনে গাজোল ব্লকে যুব সমাজের উপর নির্ভর করতে চলেছে জাতীয় কংগ্রেস। আর এ কারণেই সম্ভবত ব্লক সভাপতি পরিবর্তন করা হল। বর্ষীয়ান নেত্রী আরতি সরকারকে সরিয়ে ব্লক সভাপতির দায়িত্ব দেওয়া হল যুবনেতা প্রেম চৌধুরীকে। যুব সভাপতির দায়িত্ব পালনের পর ব্লক সভাপতির পদ পেয়েই আগামিদিনে গাজোলের সংগঠনকে আরও শক্তপোক্ত করা হবে বলে দাবি করেন।

জাতীয় কংগ্রেসের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এদিন কংগ্রেস ভবনে এক কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানেই জেলা কংগ্রেস কমিটির তরফে পাঠানো চিঠি প্রকাশ করেন। চিঠি অনুযায়ী, জেলা কংগ্রেস কমিটির সভাপতি আবু হাসেম খান চৌধুরী গাজোল ব্লকে নতুন সভাপতি হিসেবে মনোনীত করেছেন প্রেম চৌধুরীকে।

- Advertisement -

সংবাদমাধ্যমের সামনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে প্রেমবাবু বলেন, কংগ্রেস প্রার্থী হিসেবে সুশীল রায় এবং বাম কংগ্রেসের জোট প্রার্থী হিসেবে দিপালী বিশ্বাসকে জয়ী করার পিছনে কংগ্রেসের ভূমিকা ছিল অপরিসীম। কিন্তু নির্বাচনে জেতার পর দু’জনেই নিজেদের দলের সঙ্গে গদ্দারি করেছেন। নিজেদের দল ছেড়ে তৃণমূলে যাওয়ার পর থেকেই গাজোলবাসীর উন্নয়নের কথা ভুলে গিয়ে শুধু নিজেদের উন্নয়ন নিয়েই ব্যস্ত ছিলেন তারা। এরফলে স্তব্ধ হয়ে গেছে গাজোলের উন্নয়ন। আবার যখন নির্বাচন এগিয়ে আসছে তখন তৃণমূলকে বিক্রি করে দিয়ে তারা এবার নাম লিখিয়েছেন বিজেপিতে। এদের দু’জনের মধ্যে যে কেউই নির্বাচনে দাঁড়ালে তাদের সমুচিত জবাব দেবেন গাজোলবাসী।

প্রেমবাবু আরও বলেন, বর্তমানে তাদের প্রথম কাজ ধরে ধরে প্রতিটি অঞ্চল কমিটি গঠন করা। এবার বরকতদার মতাদর্শকে ভিত্তি করে একের পর এক কর্মসূচি গ্রহণ করা হবে। আগামী বিধানসভা নির্বাচনে বাম কংগ্রেসের জোট নিয়ে প্রদেশ এবং জেলা কংগ্রেস কমিটি যেভাবে নির্দেশ দেবে সেই অনুযায়ী কাজ করবেন তারা। এদিনের কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বর্ষীয়ান কংগ্রেস নেতা তামিজুদ্দিন আহমেদ, সত্যনারায়ণ প্রসাদ, অনিল বিশ্বাস সহ বিভিন্ন অঞ্চলের কংগ্রেসকর্মীরা।