করোনা রুখতে ফের কনটেনমেন্ট জোন এই এলাকাগুলিতে

341

দিনহাটা ও জলপাইগুড়ি: করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে ইতিমধ্যে দিনহাটা পুরসভার একাধিক ওয়ার্ডে সংক্রমণের গতি ঊর্ধ্বমুখী। এবার তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগেই কোচবিহার জেলা প্রশাসনের তরফে সেইসব এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই তালিকায় রয়েছে দিনহাটা পুরসভার দুটি ওয়ার্ডের চারটি এলাকা।

শুক্রবার দিনহাটা পুরসভার ৭ নম্বর ওয়ার্ডের দিনহাটা গার্লস হাইস্কুল সংলগ্ন এলাকা থেকে বোর্ডিংপাড়া এলাকা ও গোপালনগর কলোনি এবং ১২ নম্বর ওয়ার্ডের স্টেশনপাড়া থেকে সাহেবগঞ্জ রোড ও বিবেকানন্দ রোড বাইলেন এই চারটি এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়। মহকুমা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, পরবর্তী নির্দেশ না আসা পর্যন্ত কনটেনমেন্ট জোন বহাল থাকবে। গত কয়েকদিনে দিনহাটা পুরসভায় সংক্রমণের গতি এবং মৃত্যুহার ঊর্ধ্বমুখী। সেদিকে নজর রেখেই এই পদক্ষেপ করা হয়। দিনহাটা পুরসভায় বর্তমানে করোনা অ্যাকটিভ কেস রয়েছে ১৮১। যাঁদের মধ্যে ১৭৯ জন হোম আইসোলেশনে আর ২ জন জেলা কোভিড হাসপাতালে রয়েছেন। কোভিড কো-অর্ডিনেটর বাপী গোস্বামী জানান, এদিন তাঁদের কাছে জেলা প্রশাসনের যে নির্দেশিকা আসে তাতে দিনহাটা পুরসভার ৭ ও ১২ নম্বর ওয়ার্ডের চারটি এলাকাকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণার কথা বলা হয়েছে। সেইমতো সংশ্লিষ্ট ওয়ার্ডগুলিতে কনটেনমেন্ট জোন সম্বলিত ব্যানার লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে। পাশাপাশি সচেতনতা প্রচার করা হচ্ছে। মহকুমা শাসক হিমাদ্রি সরকার জানিয়েছেন, গত সাতদিনে সংক্রমণের গতি ও মৃত্যুহার দেখে ওই এলাকাগুলিকে কনটেনমেন্ট জোন ঘোষণা করা হয়েছে। তবে গতবারের ন্যায় এবার কনটেনমেন্ট জোন এলাকার বাসিন্দাদের জন্য সেরকম কোনও বিধিনিষেধ জারি করা হয়নি। অধিক সংক্রামিত এলাকা চিহ্নিত করে দ্রুত সেই এলাকায় সংক্রমণের গতি নীচে নামিয়ে আনার লক্ষেই এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে।

- Advertisement -

অন্যদিকে, জলপাইগুড়িতেও করোনা অ্যাকটিভ কেস রয়েছে ৬৬। করোনা মোকাবিলায় এদিন জলপাইগুড়ি পুরসভার তরফে একটি বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে জলপাইগুড়ি পুরসভার ১, ২, ৩, ২৩, ২৪ এবং ২৫ নম্বর ওয়ার্ডকে হটস্পট হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়া স্থির হয়, শহরের তিনটি বড় বাজার, জলপাইগুড়ি দিনবাজার, বয়েলখানা বাজার এবং স্টেশন বাজারকে ছড়িয়েছিটিয়ে বসানো হবে। পুরসভা ও প্রশাসনিক দল এলাকা পরিদর্শন করবেন। শনিবার থেকে শুরু হবে মাইক্রো কনটেনমেন্ট জোন বসানোর কাজ।