দলের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে তৃণমূল ছাড়লেন জামুড়িয়ার বিতর্কিত নেতা অলোক দাস

121

আসানসোল: বিধানসভা নির্বাচনের ফের ধাক্কা খেল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। এবার দল ছাড়ার কথা ঘোষণা করলেন আসানসোলের জামুড়িয়ার তৃণমূল কংগ্রেসের বিতর্কিত নেতা অলোক দাস। তিনি পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক পদেও ছিলেন। একাধিক সময় সংবাদ শিরোনামে উঠে এসেছে জামুড়িয়ার শাসকদলের এই নেতার নাম।

এর আগে আসানসোল পুরনিগমের প্রাক্তন মেয়র, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বিধায়ক জিতেন্দ্র তেওয়ারি সহ আসানসোলের একাধিক তৃণমূল কংগ্রেসের নেতা দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। তাহলে কি আগামী দিনে জামুড়িয়ার অলোক দাস তাঁদের পথে হেঁটে বিজেপিতে যোগদান করবেন? সেই জল্পনা নিয়ে তিনি অবশ্য মুখ খোলেননি।

- Advertisement -

অলোক দাস বলেন, ‘জামুড়িয়ার বিধানসভা নির্বাচন কমিটিতে তাঁকে রাখা হয়নি। জামুড়িয়ায় গত পঞ্চায়েত ভোটে যে যে এলাকা ও পুর ভোটে যে যে ওয়ার্ডের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল সেই সমস্ত জায়গায় আমি তৃণমূল কংগ্রেসকে জিতিয়ে এনেছি। তারপরেও দল আমাকে যোগ্য সম্মান দেয়নি। কয়েকদিন আগে আমাকে দলের ব্লক সভাপতি করা হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কোনও কারণে আমাকে না করে পুরোনো ব্লক সভাপতিকে সেই পদে ফিরিয়ে আনা হয়। এবার আমাকে নির্বাচন কমিটিতেও রাখা হল না। তাই আর এই দলে থাকব না।’

উল্লেখ্য, বছর চারেক আগে জামুড়িয়ার শিল্পতালুক এলাকায় এক কারখানায় তোলাবাজিতে নাম জড়িয়েছিল এই অলোক দাসের। কারখানা কর্তৃপক্ষের সেই অভিযোগ রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়ের কানে পৌঁছেছিলে। রাজ্যে শিল্প বিরোধী বার্তা যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়ে শাসকদল। রাজ্য নেতৃত্বের নির্দেশে দল অলোক দাসকে সাসপেন্ড করে। তবে সেই সময় দল ছাড়েনি অলোক। দেড় বছর সাসপেন্ড থাকার পরে অলোকের আচরণে সন্তুষ্ট হয়ে দল তাকে আবার ফিরিয়ে নেয়। পুরসভা ভোটে দল যেসব ওয়ার্ডের দায়িত্ব তাকে দিয়েছিলে সেইসব ওয়ার্ডে জয় পায় তৃণমূল কংগ্রেস। এরপর ২০১৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে তৎকালীন দলের জেলা সভাপতি ভি শিবদাসন ওরফে দাসু জামুড়িয়ায় প্রার্থী হয়েছিলেন। তিনি সেখানে হেরে যাওয়ার পর ফের শাস্তির মুখে পড়েন অলোক দাস। ফের তাকে সাসপেন্ড করে দল। পরবর্তীকালে ভি শিবদাসন তৃণমূলের জেলা সভাপতি হওয়ার পর আরও কোনঠাসা হয়ে পড়েন অলোক দাস। এরপরে জিতেন্দ্র তেওয়ারি দলের জেলা সভাপতি হওয়ার পর ফের দলে পুরোনো জায়গায় ফিরে আসেন অলোক দাস। এবার হঠাৎ করেই দল ছাড়লেন তিনি। এই প্রসঙ্গে জামুড়িয়ার তৃণমূল কংগ্রেসের ব্লক সভাপতি সাধন রায় বলেন, ‘তাঁর সঙ্গে দলের জেলা নেতৃত্ব কথা বলবেন।’