ভ্যাকসিন নিলেন পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি, কটাক্ষ বিরোধীদের

227

হেমতাবাদ: টিকা নিয়ে এবার বিতর্কে জড়ালেন হেমতাবাদ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি শেখর রায়। ইতিমধ্যে করণদিঘির বিধায়ক মনোদেব সিনহা করণদিঘি গ্রামীণ হাসপাতালের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হিসেবে গত রবিবার করোনা টিকা নিয়েছিলেন। তা নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল। তিনি স্বাস্থ্যকর্মী না হয়েও, শুধুমাত্র হেমতাবাদ ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হওয়ার সুবাদে টিকা নেওয়ায় সমালোচিত হয়েছিলেন তিনি। এদিন শেখর রায়ও জানিয়েছেন, হেমতাবাদ ব্লক স্বাস্থ্যকেন্দ্রের রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান হিসেবে তালিকায় তাঁর নাম ছিল বলেই তিনি টিকা নিয়েছেন। এর মধ্যে কোনও অন্যায় খুঁজে পাচ্ছেন না তিনি। তবে বিরোধীরা কটাক্ষ করতে ছাড়েননি।

সিপিএমের উত্তর দিনাজপুর জেলা কমিটির সদস্য তথা হেমতাবাদ বিধানসভার দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতা ভানুকিশোর সরকার বলেন, ‘স্বাস্থ্যকর্মীরা টিকা পাচ্ছেন না। অথচ একজন জনপ্রতিনিধি স্বাস্থ্যকর্মীদের বঞ্চিত করে নিজেকে রক্ষা করতে টিকা নিয়ে নিলেন। রোগী কল্যাণ সমিতির চেয়ারম্যান মানে কখনও স্বাস্থ্যকর্মী নন। কারণ তিনি রোগীদের পরিষেবা দেন না। আমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানাই।’ বিজেপির হেমতাবাদ মণ্ডল কমিটির সহ সভাপতি দেবব্রত সাহা অভিযোগ করে বলেন, ‘সাধারণ মানুষের কথা না ভেবে হেমতাবাদ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তথা তৃণমূল নেতা টিকা নিয়ে নিজেকে বাঁচানোর চেষ্টা করেছেন।’ জেলা কংগ্রেসের কার্যকারী সভাপতি পবিত্র চন্দ বলেন, ‘সাধারণ মানুষের চিন্তা না করে নিজেদের বাঁচাতে ব্যস্ত তৃণমূল নেতারা। মানুষ সব দেখছে। যোগ্য জবাব দেবে।’

- Advertisement -

শনিবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে সারা দেশে করোনা টিকা দেওয়া শুরু হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের নির্দেশ অনুযায়ী প্রথম পর্যায়ে শুধুমাত্র স্বাস্থ্যকর্মীদের টিকা দেওয়া হবে। তবে রাজ্যের বেশ কিছু জেলায় তৃণমূল কংগ্রেসের বেশ কয়েকজন নেতা তথা বিধায়ক টিকা নেওয়ায় বিতর্ক ছড়িয়েছে।