আগাছায় ছেয়েছে কোচবিহারের রাজবাড়ি, সাফাইয়ের দাবি

184

কোচবিহার: করোনা পরিস্থিতির জন্য দীর্ঘদিন থেকে বন্ধ রয়েছে কোচবিহারের ঐতিহ্যবাহী রাজবাড়ি। বাগানের পরিচর্যা বন্ধ থাকায আগাছায় ছেয়েছে ওই চত্বর। রাজ্যের অন্যতম এই পর্যটনকেন্দ্রটির সৌন্দর্য নষ্ট হতে বসায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন সাধারণ মানুষ। শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়ারও দাবি উঠেছে।

রাজবাড়ির এক আধিকারিক বিনয় দাস জানান, বাগানগুলি নষ্ট হয়ে যাচ্ছে দেখে খারাপ লাগছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশ পেলেই কাজ করা হবে। কোচবিহার হেরিটেজ সোসাইটির সম্পাদক অরুপজ্যোতি মজুমদার বলেন, ‘রাজবাড়ির সৌন্দর্য কখনই নষ্ট হতে দেওয়া উচিত নয়। সামাজিক দূরত্ব মেনে বাগান পরিচর্যা করানো হোক।’

- Advertisement -

করোনা মোকাবিলায় সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে গত ১৭ মার্চ থেকে বন্ধ রাখা হয়েছে কোচবিহারের রাজবাড়ি। এদিকে, সেখানকার বেশ কয়েকজন কর্মী নিয়মিত বেতনও পাচ্ছেন না বলে অভিযোগ তাঁদের। লকডাউন শিথিল হতেই বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি ক্ষেত্রে কাজকর্ম শুরু হয়েছে। কিন্তু রাজবাড়ির বাগানের পরিচর্যা হচ্ছে না বলে অভিযোগ।

১৮৮৭ সালে মহারাজা নৃপেন্দ্র নারায়ণের আমলে শহরের কেশব রোডের ধারে বিশাল এলাকাজুড়ে রাজবাড়িটি তৈরি হয়। ১৯৫০ সালে রাজ শাসনের অবসান ঘটলেও মহারাজা জগদীপেন্দ্র নারায়ণ ১৯৭০ সাল পর্যন্ত রাজবাড়িতে ছিলেন। তার মৃত্যুর পর প্রায ১৫-২০ বছর অবহেলায় পরে থাকে ঐতিহ্যবাহী রাজবাড়ি। পরে বিংশ শতাব্দির শেষের দিকে ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণ (এএসআই) রাজবাড়িটিকে অধিগ্রহণ করে। পর্যটকদের আকর্ষিত করতে নানা উদ্যোগ নেওয়া হয়। প্রতিদিনই দেশ-বিদেশের বহু পর্যটক সেখানে ভিড় করেন। রাজবাড়ির সৌন্দর্যের পাশাপাশি মুল ভবনের সামনে বিশাল এলাকাজুড়ে থাকা বাগান দেখতেও ভিড় করেন পর্যটকরা। কিন্তু দীর্ঘদিন থেকে পরিচর্যা না হওয়ায় সৌন্দর্য হারাচ্ছে বাগানটি।