করোনা সংক্রামিত মাদারিহাট বীরপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির ৩ সদস্য

635

মোস্তাক মোরশেদ হোসেন, রাঙ্গালিবাজনা: করোনা সংক্রামিত আলিপুরদুয়ার জেলার মাদারিহাট বীরপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির তিন সদস্য। ওই ব্লকের খয়েরবাড়ি, রাঙ্গালিবাজনা ও বান্দাপানি গ্রাম পঞ্চায়েতের একজন করে পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য করোনা সংক্রামিত হয়েছেন বলে মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লক প্রশাসন সূত্রে জানানো হয়েছে।

শুক্রবার গভীর রাতে তাদের আলিপুরদুয়ারের সেফ হোমে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে মাদারিহাট বীরপাড়া ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রের খবর। এই বিষয়ে মাদারিহাটের বিডিও শ্যারণ তামাং বলেন, ‘ওই সদস্যদের বাড়ি সংলগ্ন এলাকাগুলিকে কনটেনমেন্ট জোন হিসেবে ঘোষণা করা হচ্ছে।’

- Advertisement -

সম্প্রতি, মাদারিহাটের বিডিও অফিসে কর্মরত দু’জনের শরীরে করোনার অস্তিত্ব মেলে। এর পরই ওই কর্মীদের সংস্পর্শে আসা ব্যক্তিদের হোম কোয়ারান্টিনে পাঠানো হয়। স্থানীয় সূত্রে খবর, পঞ্চায়েত সমিতির সদস্যরা বাড়িতে থাকলেও তাঁদের সঙ্গে দেখা করতে প্রতিদিনই তাঁদের বাড়িতে গিয়েছেন গ্রামের অনেকেই। অর্থাৎ, দিন দশেকের মধ্যে এক এক জন সদস্যের সংস্পর্শে এসেছেন শতাধিক মানুষ। আবার স্থানীয়দের কারও কারও অভিযোগ, ওই তিনজনের মধ্যে কমপক্ষে দু’জনকে পাড়ার মোড়ের মাথার দোকানে চা খেতেও দেখা গিয়েছে। এমনকি এক সদস্য গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত বাজারে আড্ডা দিয়েছেন, দোকানে দোকানে ঘোরাঘুরি করেছেন বলেও অভিযোগ। স্বভাবতই এই নিয়ে রীতিমতো আতঙ্ক সৃষ্টি হয়েছে এলাকায়।

প্রসঙ্গত, প্রথমে মাদারিহাট বিডিও অফিসের কর্মী, পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য, কর্মী মিলিয়ে ৫৬ জনের লালার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। গত শনিবার তাদের মধ্যে দু’জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এরপর সোমবার আরও ৬১ জনের লালার নমুনা পরীক্ষা করা হয়। শুক্রবার রাতে ওই ৬১ জনের মধ্যে ৩ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। তবে, রিপোর্ট আসার আগেই বাড়ি থেকে কেন বের হলেন তাঁরা, কেনই বা বাজারে গেলেন তা নিয়েই প্রশ্ন উঠেছে এলাকায়।