করোনা আতঙ্কে বাবাকে খাঁচাবন্দি বালুরঘাটে

178

সুবীর মহন্ত, বালুরঘাট : একেই মানসিক ভারসাম্যহীন। তার উপরে করোনা আতঙ্ক। তাই বাধ্য হয়ে বাড়ির সামনে বাঁশের খাঁচা তৈরি করে আটকে রাখা হয়েছে এক বৃদ্ধকে। খাসপুর থেকে বালুরঘাট যাওয়ার রাস্তায় পথে পার্বতীপুর গ্রামের রাস্তার ধারেই ওইভাবেই তাঁকে আটকে রাখা হয়েছে। নিজের বাড়ির সামনেই পশুদের মতো আস্ত খাঁচাবন্দি হয়ে বসে রয়েছেন খোদ বাড়ির কর্তা সুশান্ত দাস। সত্তরোর্ধ্ব ওই বৃদ্ধ সুশান্তবাবুর স্ত্রী রয়েছেন। তাঁদের দুই ছেলেও ওখানেই পরিবার নিয়ে থাকেন। ছোট ছেলে পেশায় গাড়ির কনডাক্টর আর বড় ভাই খোকন নিজের পিকআপ ভ্যান চালিয়ে সংসার চালান।

ছোট ছেলে ছোটন দাস জানান, চার বছর আগে পেশায় কলমিস্ত্রি আমার বাবা অবসাদগ্রস্ত হয়ে নিজের মানসিক ভারসাম্য হারিয়ে ফেলতে থাকেন। বাড়ি থেকে বেরিয়ে গেলে বাড়ি ফেরেন না। বেশ কয়েকদিন নিখোঁজ থাকার পর খোঁজখবর করে অন্য কোনও গ্রাম থেকে তাঁকে খুজে  নিয়ে আসতে হয়। দিনের পর দিন এমন হয়রানির মধ্যে পড়তে হয়েছে। পাশাপাশি গতবছর থেকে করোনার একটা ভীতিও রয়েছে। এদিকে আমরাও নিজেদের কাজে সারাক্ষণ বাড়িতে থাকি না। ফলে দেখভাল করা সম্ভব নয়। তাই বাবাকে খাঁচাবন্দি করে গাছতলায় রেখে দিয়েছি। সকালে ঘর থেকে বের করে নিয়ে এসে এই খাঁচায় পোরা হয়।এখানেই তাঁর খাওয়াদাওয়া ও প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার কাজ। রাতে অবশ্য ঘরে ফিরিয়ে নিয়ে বাইরে থেকে তালা মেরে রাখা হয় তাঁকে।

- Advertisement -

ছোটন জানিয়েছেন, বাবাকে সুস্থ করে তুলতে আমরা অনেক চিকিৎসা করিয়েছি। বালুরঘাট তো বটেই, এমনকি পাশের জেলা মালদা ও সুদূর বহরমপুর পর্যন্ত দৌড়েছি অসুস্থ বাবাকে সুস্থ করে  তোলার জন্য। কিন্তু বারবার নিরাশ হয়ে ফিরে আসতে হয়েছে। তাই বাবাকে হারানোর ভয়ে বাধ্য হয়ে এভাবেই খাঁচাবন্দি করে রাখতে হয়েছে।