কোভিড হাসপাতাল থেকে নিখোঁজ করোনা রোগী, চাঞ্চল্য

741
ফাইল ছবি।

রায়গঞ্জ: হাসপাতালে থেকে করোনা আক্রান্ত রোগী নিখোঁজের ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়াল রায়গঞ্জে। শুক্রবার কর্ণজোড়া ফাঁড়ির অন্তর্গত ১৩ নম্বর কমলাবাড়ী ছটপারুয়া এলাকার মিক্কিমেঘা কোভিড হাসপাতালের ঘটনা। হাসপাতালের তরফে ইতিমধ্যে কর্ণজোড়া ফাঁড়িতে রোগী নিখোঁজের বিষয়ে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

কোভিড হাসপাতাল সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্ত ওই রোগী চলতি মাসের ১৮ তারিখ সন্ধ্যায় রায়গঞ্জের কোভিড হাসপাতালে ভর্তি হয়। তারপর এদিন ভোরে নার্সিং সুপার বাপি বিশ্বাস ফিমেল ওয়ার্ডে গিয়ে ওই করোনা রোগীকে খুঁজে পান নি। বহু খোঁজাখুজির পর রোগীকে না পেয়ে জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক রবীন্দ্রনাথ প্রধানসহ অন্যান্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের জানান।

- Advertisement -

এদিকে থানা সূত্রে খবর, পুলিশ সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে ওই গৃহবধূ কখন হাসপাতাল থেকে উধাও হয়েছে তা নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। জেলার মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক রবীন্দ্রনাথ প্রধান বলেন, “কোভিড হাসপাতাল থেকে করোনা আক্রান্ত এক গৃহবধূ উধাও হয়ে গিয়েছে। থানায় অভিযোগ করা হয়েছে।” পুলিশ ও স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিনের নিখোঁজ করোনা আক্রান্ত গৃহবধূর নাম ঋত্বিকা পারভীন(২১)। বাড়ি কালিয়াগঞ্জ থানার ফতেপুর গ্রামে। ওই করোনা আক্রান্ত রোগীনির খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ।

যদিও কোভিড হাসপাতাল থেকে নিখোঁজের ঘটনা এই প্রথম নয়। এর আগে রায়গঞ্জ শহরের মোহনবাটি এলাকার বাসিন্দা এক ব্যক্তি মদ খাওয়ার জন্য কোভিড হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে গিয়েছিলেন। পরবর্তীতে পুলিশ ও স্বাস্থ্য দফতরের কর্মীরা ওই ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ডিআরবি দিয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি পাঠিয়েছিল।

এদিকে স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ১৯০৪ জন, সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে ১৩২৮ জন, অ্যাক্টিভ কেস রয়েছে ৫৫৮ জন। রায়গঞ্জের মিক্কিমেঘা কোভিড হাসপাতলে ভর্তি হয়েছে ৭৪ জন, ইসলামপুর কোভিড হাসপাতলে ভর্তি রয়েছে পাঁচজন। ঘরে থেকে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা চলছে ৪৫১ জনের। সেফ হোমে রয়েছে ২২ জন। উত্তর দিনাজপুর জেলার বাসিন্দা করোনা আক্রান্ত হলেও জেলার বাইরে থাকার সংখ্যা ছয়জন। এদিন বিকেল পাঁচটা নাগাদ রায়গঞ্জ কোভিড হাসপাতাল থেকে পাঁচজন করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছে। তাদের মধ্যে একজন মেরুয়াল বিএসএফ ক্যাম্পের ইন্সপেক্টর পদে কর্মরত।একজন মেডিকেল কলেজের নার্স বাকি তিনজন বাসের কন্ডাক্টর।