করোনা ভাইরাস আতঙ্ক চীনে, ঘরবন্দি হয়ে রয়েছে বর্ধমানের মেধাবী ছাত্র

377

বর্ধমান, ২৭ জানুয়ারিঃ চীনে পোস্ট ডক্টরেট করতে গিয়ে বর্ধমানের যুবক চরম বিপাকে পড়েছেন। করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে এখন চীনে কার্যত ঘরবন্দি হয়ে রয়েছেন যুবক সৌম্য কুমার রায়। বর্ধমান শহরের কালিবাজার এলাকা নিবাসী যুবকের বাবা ও মা ছেলের এই অবস্থার খবর পেয়ে চরম উৎকণ্ঠায় দিন কাটাচ্ছেন। যেমন করেই হোক সৌম্য দ্রুত ভারতে ফিরে আসুক এমনটাই চাইছে তার পরিবার। যুবকের বাবা সুজিত কুমার রায় জানিয়েছেন, ব্যাঙ্গালুরু থেকে এমএস করার পর কানপুর আইআইটি থেকে ওই যুবক পিএইচডি করেছিল। এরপর পোস্ট ডক্টরেট করতে দু’বছরের চুক্তিতে ২০১৯ সালে সৌম্য চিনের হুবেই প্রদেশের ওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে যোগ দেয়। এক বছর পর দেড় মাসের ছুটিতে সৌম্য বর্ধমানের বাড়িতে ফিরেছিল। এরপর যুবক ২২ জানুয়ারি ফের চীনে পৌঁছায়। অন্যদিকে, ২৩ জানুয়ারি থেকেই গোটা চীন জুড়ে করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। বর্তমানে গোটা চিন ভাইরাসের আতঙ্কে কাঁপছে। সুজিত বাবু জানিয়েছেন, ছেলেকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করুক ভারত সরকার। ছেলেকে চিন থেকে ফিরিয়ে আনার জন্য মা ইনা দেবী রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে আবেদন রেখেছেন। পরিবার সদস্যদের কাছে সৌম্য ফোনে জানিয়েছেন, করোনা ভাইরাসের আতঙ্কে চিনের বাজার-হাট, প্লেন, ট্রেন চলাচল সবই বন্ধ হয়ে রয়েছে। সৌম্য জানিয়েছে, চিনে তারা ঘরবন্দি হয়ে রয়েছে। সময় মতো খাবারও মিলছে না। ওই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসের দু’জন ছাত্র করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার পর থেকে আতঙ্ক আরও বেড়ে গিয়েছে। চীনে ইতিমধ্যেই করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বহু মানুষের মৃত্যুও হয়েছে বলে খবর। সেখানে বহু মানুষ মারণ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন বলে, স্থানীয় কিছু সংবাদমাধ্যম খবর প্রকাশ করেছে। এদিকে, এই ভাইরাসের কোনো প্রতিষেধক এখনও তৈরি না হওয়ায়, আতঙ্ক বৃদ্ধি পাচ্ছে।