করোনা সচেতনতার বার্তায় জোর পশ্চিমপাড়া সর্বজনীনের

227

মেখলিগঞ্জ: করোনা সচেতনতার বার্তায় জোর দিতে চলেছে মেখলিগঞ্জ পশ্চিমপাড়া সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটি। করোনা সচেতনতার বার্তা দিতে মন্ডপে থাকছে ফটো ইলেক্ট্রিক সেন্সর ও স্যানিটাইজেশন গেট। উদ্যোক্তাদের দাবি মেখলিগঞ্জ ব্লকের বিগ বাজেটের পুজোগুলির অন্যতম পশ্চিমপাড়া সর্বজনীন দুর্গোৎসব কমিটির পুজো। প্রতিবছর জমজমাট উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়ে থাকে পুজো কমিটির তরফে তাই মেখলিগঞ্জ পুরসভার কয়েক হাজার মানুষ সহ মেখলিগঞ্জ ব্লকের বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকা ও পার্শ্ববর্তী এলাকার প্রচুর মানুষ এই পুজো মন্ডপে ভির জমান।

কিন্তু চলতি বছরে পরিস্থিতি অন্য রকম। করোনা আবহে কাবু গোটা বিশ্ব সমেত দেশ ও রাজ্য। তাই বিগ বাজেট অপেক্ষা পুজোর মধ্য দিয়ে করোনা সচেতনতার বার্তা দেওয়াকেই মূল উদ্দেশ্য মনে করছে পুজো কমিটিগুলি। বিগত বছরগুলিতে স্থানীয় ও জেলার একাধিক সংগঠনের তরফে এই পুজোকে বিভিন্ন পুরস্কার প্রদান করা হয়েছে। এবার পুজো কমিটির প্রতিমা আসছে ময়নাগুড়ি থেকে। প্যান্ডেলের দায়িত্বে রয়েছেন স্থানীয় ডেকোরেটার পুলক পাল। পুজো কমিটির সম্পাদক পদে রয়েছেন দিব্যায়ন সরকার। সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন শিবেন্দ্রনাথ রায়। সহ সভাপতির দায়িত্বে রয়েছেন বিশ্বজিৎ সিংহ। কোষাধক্ষ্যর দায়িত্বে রয়েছেন কৌশিক ভৌমিক।

- Advertisement -

পুজো কমিটির সম্পাদক দিব্যায়ন সরকার জানান, ২০০৬ সালে রাজ্যের তৎকালীন খাদ্যমন্ত্রী পরেশ চন্দ্র অধিকারীর উদ্যোগে ও পশ্চিমপাড়া নিবাসীদের প্রয়াসে এই পুজোর সূচনা হয়। তিনি আরও জানান চলতি বছর নৌকার ওপর কাল্পনিক প্যান্ডেল তৈরি করছেন তাঁরা পাশাপাশি রয়েছে মন্ডপে প্রবেশের জন্য স্যানিটাইজেশন গেটের মতো পরিকল্পনা।

চ্যাংরাবান্ধা উন্নয়ন পর্ষদের চেয়ারম্যান পরেশ চন্দ্র অধিকারী জানান, সরকারের তরফে দেওয়া স্বাস্থ্যবিধি মেনেই যাতে পুজোর আনন্দে সবাই মেতে ওঠে পশ্চিমপাড়া সর্বজনীননের তরফে সেই বার্তা দেওয়া হবে।