টিকা যথেষ্ট থাকলেও গ্রহীতা না থাকায় সমস্যায় প্রশাসন

128
প্রতীকী ছবি

নয়াদিল্লি: ইউরোপের বিপরীত ছবি ভারতে। টিকা যথেষ্ট থাকলেও টিকা নিতে ভয়ে এগিয়ে আসছেন না গ্রহীতারা। ভারতে প্রাথমিকভাবে করোনা যোদ্ধাদের টিকা দেওয়ার কথা ঘোষণা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে সেরাম ইনস্টিটিউটের কোভিশিল্ড ও ভারত বায়োটেকের কোভ্যাক্সিন এই দুটি টিকা অনুমোদন পেয়েছে। তবে অনেকেই কোভ্যাক্সিনের সুরক্ষা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন। তাঁরা মনে করছেন, কোভ্যাক্সিনের এখনও তৃতীয় পর্যায়ের ট্রায়ালই শেষ হয়নি।

জুলাইয়ের মধ্যে ভারতে ৩০ কোটি মানুষকে টিকা দিতে গেলে যে গতিতে টিকাকরণ হওয়ার কথা, তা হচ্ছে না। জানা গিয়েছে, এখনও পর্যন্ত ২০ লক্ষ মানুষকে টিকা দেওয়া সম্ভব হয়েছে। নয়াদিল্লির এইমসের চিকিৎসক সংগঠনের সদস্য আদর্শপ্রতাপ সিং জানিয়েছেন, তাদের মতো একাধিক প্রতিষ্ঠান কোভ্যাক্সিন প্রয়োগের বিষয়ে নিশ্চিন্ত নয়। সরকারের উচিৎ উপযুক্ত তথ্যপ্রমাণ নিয়ে সাধারণ মানুষের মনে ভরসা তৈরি করা যে এই টিকাও গ্রহণযোগ্য। যদিও সরকারের তরফে দুটি টিকাই নিরাপদ বলে ঘোষণা করা হয়েছে। এই বিষয়ে ভারত বায়োটেকের প্রধান কৃষ্ণা এলা জানিয়েছেন, সংস্থা ২০০ শতাংশ স্বচ্ছ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল চালিয়েছে। ১৬টি নিরাপদ টিকা তৈরির ইতিহাস রয়েছে সংস্থার। এদিকে ভারতে পর্যাপ্ত টিকা থাকলেও উলটো ছবি আমেরিকা ও ইউরোপের দেশগুলিতে। সেখানে টিকা নেওয়ার লোক থাকলেও পর্যাপ্ত টিকার সরবরাহ নেই। সেই কারণেই ভারতের থেকে টিকা কিনতে চেয়েছে অন্য দেশগুলি।

- Advertisement -