হজযাত্রার জমানো টাকা আরএসএসের তহবিলে দিলেন মুসলিম মহিলা

369

শ্রীনগর : করোনার আবহে মানবিকতার পরিচয় দিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের এক মুসলিম ধর্মাবলম্বী মহিলা। হজ যাত্রার জন্য জমানো ৫ লক্ষ টাকা তিনি তুলে দিলেন আরএসএসের শাখা সংগঠন সেবা ভারতী-র হাতে। বছর ৮৭-এর ওই মহিলার নাম খালিদা বেগম। করোনা মোকাবিলায় লকডাউন চলাকালীন সেবা ভারতী-র সেবামূলক নানা কাজকর্মে অনুপ্রাণিত হয়ে তিনি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

তাঁর এই সিদ্ধান্তের কথা জানাজানি হতেই তা চর্চার বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে। মুসলিম ধর্মে দীক্ষিত হয়েও তীব্র হিন্দুত্ববাদী সংগঠন বলে পরিচিত আরএসএস-কে হজ যাত্রার অর্থ দান করার বিষয়টি নিঃসন্দেহে দৃষ্টান্তমূলক। এটাই হয়ত ভারতবর্ষ। যেখানে ধর্মের ভেদাভেদ মানুষের পাশে মানুষের দাঁড়ানোর ক্ষেত্রে বাঁধা হযে দাঁড়ায় না।

- Advertisement -

খালিদা বেগম প্রয়াত জন সঙ্ঘের সভাপতি পীর মহম্মদ খানের নাতনি। ছোটো থেকেই কনভেন্টে পড়াশুনা তাঁর। খালিদা বেগমের ছেলে ফারুক খান অবসরপ্রাপ্ত আইপিএস অফিসার, যিনি বর্তমানে জম্মু-কাশ্মীর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের লেফটেন্যান্ট গভর্নরের পরামর্শদাতা হিসাবে নিযুক্ত রয়েছেন।

মুসলিম ধর্মাবলম্বীদের বার্ষিক তীর্থযাত্রাই হল হজ। প্রতিবছর বহু মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষ সৌদি আরবের মক্কায় হজ করতে যান। টাকার কারণে অনেকের ইচ্ছা থাকলেও হজ যাত্রায় যাওয়া সম্ভব হয়ে ওঠে না। সেখানে সারাজীবনের ধরে হজ যাত্রার জন্য জমানো টাকা মানুষের সাহায্যে দান করার বিষয়টি নজিরবিহীন।

আরএসএসের মিডিয়া শাখা ইন্দ্রপ্রস্থ বিশ্ব সংবাদকেন্দ্রের প্রধান অরুণ আনন্দ বলেন, ‘লকডাউন চলাকালীন সেবা ভারতী-র সমাজসেবামূলক কাজে অনুপ্রাণিত হয়ে খালিদা বেগম ওই সংগঠনের তহবিলে ৫ লক্ষ টাকা দিয়েছেন। তিনি গরীব কাশ্মীরিদের পাশে দাঁড়াতে চেয়েছেন। আমরা তাঁর ইচ্ছের মর্যাদা রাখব।’

তিনি আরও জানান, ওই টাকা খালিদাজী হজ যাত্রার জন্য জমিয়েছিলেন। কিন্তু করোনার কারণে আপাতত তা সম্ভব না হওয়ায় তিনি এই মানবিক উদ্যোগ নিয়েছেন। এই বয়সেও তিনি বিভিন্ন সমাজসেবামূলক কাজকর্মের সঙ্গে জড়িত রয়েছেন।