সংক্রমণ মোকাবিলায় অবিলম্বে সুরক্ষাবিধি কার্যকর করার নির্দেশ আদালতের

75
সংগৃহীত ছবি

কলকাতা: করোনা পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক দলের মিটিং-মিছিলে লাগাম টানার দাবিতে দায়ের হওয়া একাধিক জনস্বার্থ মামলার শুনানি হল আজ মঙ্গলবার। রাজনৈতিক দল গুলির উদ্দেশ্যে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চের আর্জি মিটিং-মিছিল বন্ধ করে সাধারণ মানুষকে বিচার বিবেচনা করতে হোক। এক্ষেত্রে সরাসরি মিটিং-মিছিল বন্ধ করার নির্দেশ না দিলেও রাজনৈতিক দলগুলোর প্রচারের উপর লাগাম টানলেই ভালো হয়, সেটা অক্ষরে অক্ষরে বোঝানোর চেষ্টা করলেন প্রধান বিচারপতি টিবিএন রাধাকৃষ্ণনান। পাশাপাশি করোনা নিয়ন্ত্রণে নির্বাচন কমিশন যে সমস্ত সুরক্ষাবিধি ইতিমধ্যেই গ্রহণ করেছে, প্রয়োজনে পুলিশের সাহায্য নিয়ে অবিলম্বে তা কার্যকর করার নির্দেশও কমিশনকে। এবিষয়ে রাজ্য সরকারও যেন নির্বাচন কমিশনকে সহযোগিতা করে সেই নির্দেশ দেন প্রধান বিচারপতি টিবিএন রাধাকৃষ্ণনান ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়ের ডিভিশন বেঞ্চ। পাশাপাশি করোনা সুরক্ষাবিধি কতদূর কার্যকর করা হল তা আগামী বৃহস্পতিবার আদালতে জানাতে হবে কমিশন ও রাজ্যকে।

এদিন মামলার শুনানি পর্বে মামলাকারীদের তরফে বলা হয়, নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সঙ্গে রাজ্যেরও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। রাজ্য সরকার দায় এড়িয়ে যেতে পারে না। ইতিমধ্যেই রাজ্যের হাসপাতালে বেডের ঘাটতি দেখা যাচ্ছে। অক্সিজেনের ব্যাবস্থা নেই। দু’জন রাজনৈতিক দলের প্রার্থী করোনা আক্রান্ত হয়ে মারা গিয়েছেন। মিটিং-মিছিল পুরোপুরি বন্ধ করার নির্দেশ দেওয়া উচিত আদালতের। না হলে সাধারণ মানুষকে আটকানো সম্ভব নয়। এর পালটা রাজ্যের তরফে এডভোকেট জেনারেল কিশোর দত্ত বলেন, ‘এই মুহূর্তে নির্বাচন কমিশনের হাতেই সব কিছু। রাজ্য কি করতে পারে? অন্যদিকে কমিশনের তরফে বলা হয় সংক্রমণ আটকাতে কঠোরভাবে যাতে সুরক্ষাবিধি মানা হয় সেটা দেখা হচ্ছে। আগামী দফা গুলিতেও সেই চেষ্টাই করবে কমিশন। সব পক্ষের বক্তব্য শোনার পর সুরক্ষাবিধি যাতে অবিলম্বে কার্যকর করা হয় সেই নির্দেশ দিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ।

- Advertisement -

এক মামলাকারীর তরফে আইনজীবী শমীক বাগচি জানান, নির্বাচন কমিশনকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এর আগে কমিশন আদালতে হলফনামায় যে সমস্ত সুরক্ষাবিধি গ্রহণ করা হচ্ছে বলে জানিয়েছিল সেগুলো কতদূর কার্যকর করা হয়েছে সেটা জানাতে হবে আদালতে আগামী বৃহস্পতিবার। পাশাপাশি এই কাজে রাজ্যকে পূর্ণ সহযোগিতা করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত।