আগামী সপ্তাহে ভারতে রুশ করোনা টিকার পরীক্ষা

266

নয়াদিল্লি: রাশিয়ার তৈরি করোনা ভাইরাসের প্রতিষেধক স্পুটনিক-ভি-এর দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্যায়ে পরীক্ষা হবে ভারতে। সেই সুবাদে আগামী সপ্তাহের মধ্যে কানপুরের গণেশ শঙ্কর বিদ্যার্থী মেডিকেল কলেজে স্পুটনিক-ভি পৌঁছে যাবে বলে জানা গিয়েছে। ভারতের তরফে ওষুধ নিয়ামক সংস্থা ড্রাগ কন্ট্রোল জেনারেল অব ইন্ডিয়া (ডিজিসিআই) রাশিয়ান ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ড (আরডিআইএফ) ও ডক্টর রেড্ডিজ ল্যাবকে চূড়ান্ত পর্বের পরীক্ষা চালানোর অনুমতি দিয়েছে। কলেজের অধ্যক্ষ আরবি কমল বলেন, আগামী সপ্তাহ থেকে প্রতিষেধকের ট্রায়াল শুরু হতে পারে। এখনও পর্যন্ত পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য ১৮০ জন স্বেচ্ছাসেবক নাম নথিভুক্ত করেছেন।

এদিকে ভারতের বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর বলেছেন, করোনা টিকার জন্য গোটা বিশ্ব ভারতের দিকে চেয়ে রয়েছে। সব দেশে সুলভ মূল্যে ও চাহিদামতো করোনা টিকা পৌঁছে দিতে ভারত যথাসাধ্য চেষ্টা করবে বলে ইতিমধ্যে রাষ্ট্রসংঘে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি প্রতিশ্রুতি দেওয়ার পর থেকে এই প্রত্যাশাটা আরও বেড়ে গিয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন। বিদেশমন্ত্রী বলেন, করোনা থেকে উদ্ধার পেতে হলে সব দেশকেই ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে।

- Advertisement -

এর আগে এক বার স্পুটনিক ভি টিকা পরীক্ষার বিষয়ে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল ডিজিসিআই। জানা গিয়েছিল, রাশিয়ার তৈরি ভ্যাকসিনের প্রাথমিক মানব-পরীক্ষা করা হয়েছিল খুব অল্পসংখ্যক লোকের ওপর। সেই কারণে নিয়ম ভেঙে তৃতীয় পর্বের পরীক্ষা করা যায় না বলেই মত ছিল বিশেষজ্ঞ মহলের। এরপর, গত ১৩ অক্টোবর হায়দরাবাদের সংস্থা ডক্টরস রেড্ডিজ ল্যাব ফের ভারতে রাশিয়ার টিকার হিউম্যান ট্রায়াল করার অনুমতি চেয়ে আবেদন করেছিল। সেই আবেদনে ফেজ ২ ও ফেজ ৩ হিউম্যান ট্রায়ালের অনুমতি চাওয়া হয়। নতুন চুক্তি অনুযায়ী, দেশের মোট দেড় হাজার মানুষের শরীরে এই করোনার টিকা প্রয়োগ করে পরীক্ষা করা হবে। চুক্তিতে এও বলা হয়েছে যে, করোনা টিকার এই পরীক্ষা সফল হলেও ডিজিসিআই-এর থেকে নতুন করে অনুমতি নিতে হবে। তা হলেই বাজারে করোনার টিকা আনা যাবে। ১০ কোটি করোনার টিকা ডক্টর রেড্ডিজ ল্যাবের মাধ্যমে ভারতে পাঠাবে রাশিয়া।

দেশ হিসাবে রাশিয়াই প্রথম করোনা ভাইরাসের টিকা আবিষ্কারের কৃতিত্ব দাবি করেছে। তারপর থেকে সেই টিকা স্পুটনিক ভি পেতে পৃথিবীর একাধিক দেশ হাত বাড়িয়ে রয়েছে। এখন দেখার, কতটা কার্যকর হয় এই টিকা।