মাল পুরসভা কার্যালয়ে করোনা টিকা নিলেন ১০১ বছর বয়সি বৃদ্ধা

13

মালবাজার ,১১ জুনঃ নাতনির সঙ্গে এসে মাল পুরসভা কার্যালয়ে এসে করোনা ভাইরাসের টিকা নিলেন ১০১ বছর বয়সি মহিলা। মাল শহরের ৮ নম্বর ওয়ার্ডের দক্ষিণ কলোনি খুকুমণি পাল শুক্রবার করোনা টিকার প্রথম ডোজ নিলেন। খুকুমণি দেবী বলেন, আমার প্রার্থনা সকলেই ভাল থাকুন। এই কঠিন সময় পেরিয়ে যাক। সকলেই আবার স্বাভাবিক জীবন-যাপন করুক। বৃদ্ধা টিকা নেওয়াতে উচ্ছ্বসিত উপস্থিত সকলেই।

করোনা প্রতিরোধের টিকাকরণ কর্মসূচিতে প্রথমদিকে তেমন সাড়া মিলছিল না। তবে, পরবর্তীতে চিত্র পালটে যায়। করোনার দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পড়তেই টিকাকরণের গুরুত্ব অনেকটাই বেড়ে যায়। সাধারণ মানুষও তা উপলব্ধি করেন। বর্তমানে সবজায়গাতেই টিকাকরণে জোর দেওয়া হচ্ছে। মাল পুরসভা কার্যালয়েও ধারাবাহিকভাবে শিবির করে টিকাকরণ কর্মসূচি চলছে। মাল মহকুমা হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ এই টিকাকরণ কর্মসূচিতে পরিচালনা করছেন।

- Advertisement -

এদিন পুরসভা কার্যালয় চত্বরে প্রবীণ বাসিন্দাদের টিকাকরণ ছিল। বৃষ্টি উপেক্ষা করেই টিকা নিতে উপস্থিত হন ১০১ বছর বয়সি খুকুমণি পাল। খুকুমণি দেবী বলেন, আমি বাড়ি থেকে বিশেষ বের হই না। কিছু এলার্জি গত সমস্যা ছিল। এখন আর কিছুই নেই। আমি সুস্থ আছি। বাড়ির সকলেই বলেছে টিকা নিতে। তাই, আজকে এসে টিকা নিলাম। টিকা নেওয়ার পর কোনও অসুবিধাও হয়নি। আমি চাই সকলেই করোনার টিকা নিয়ে সুস্থ থাকুন।

খুকুমনির পালের নাতনি পায়েল পাল ঠাকুমাকে সঙ্গে নিয়েই এসেছিল। পায়েল বলেন, ঠাকুমার টিকাকরণের পর, আমরা সকলেই আরেকটু আশ্বস্ত হয়েছি। পুরসভার ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কো-অর্ডিনেটর মণিকা সাহা বলেন, আমরা চাই এলাকার প্রবীণ সহ সকলেই টিকা নিন। সর্বত্রই এই প্রচার চালিয়ে যাচ্ছি।

মালবাজারের মহকুমা হাসপাতাল তথা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালের সুপারিনটেনডেন্ট ডাঃ সুরজিৎ সেন বলেন, প্রবীণদের টিকা গ্রহণ সত্যিই ইতিবাচক। পাশাপাশি, টিকা গ্রহণে সকলেরই খুব আগ্রহ তৈরি হয়েছে। এদিকে, খুকুমণি পাল ছাড়াও রাখাল দেবী পাল, অশোক ছওছাড়িয়ার মতন প্রবীনরাও এদিন উৎসাহের সঙ্গে টিকা নিয়েছেন।