করোনা ভ্যাকসিন নিতে এলেন না অঙ্গনওয়ারী কর্মীরা

603

ফাঁসিদেওয়া, ২২ জানুয়ারিঃ অঙ্গনওয়ারী কর্মীদের অনীহার মধ্য দিয়েই ফাঁসিদেওয়া ব্লকে করোনা ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু হল। শুক্রবার প্রথমবারের মতো ফাঁসিদেওয়া ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তরের অন্তর্ভুক্ত ফাঁসিদেওয়া গ্রামীণ হাসপাতালের সাব হেলথ সেন্টারে এই ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। তবে, দিনের শুরুতেই কে প্রথম ভ্যাকসিন নেবেন, তা নিয়ে ধন্ধ ছিল। যদিও, পরে ধীমালজোতের কমিউনিটি হেলথ অফিসারকে দিয়েই ভ্যাকসিন দেওয়া কর্মসূচি শুরু করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রের খবর, দিনের লক্ষ্যমাত্রা পেরিয়ে গিয়েছে প্রথম দিনেই। ১০০ জনকে ভ্যাকসিন দেওয়ার কথা থাকলেও, গ্রামীণ হাসপাতালের চিকিৎসক, স্টাফ নার্স, অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ স্টাফ, গাড়ির চালক, সাপোর্টিং স্টাফ সহ মোট ১১২ জন এদিন করোনা ভ্যাকসিন নিয়েছেন। ভ্যাকসিন দেওয়ার পর টিকা গ্রহণকারীকে ৩০ মিনিট নজরদারিতে রাখার পর ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এদিন এই কর্মসূচিতে ওয়ার্লড হেলথ অর্গানাইজেশনে এসএমও শুভেন্দু রায়, ডেপুটি সিএমওএইচ ২ তুলসী প্রামানিক, দার্জিলিংয়ের ডেপুটি সিএমওএইচ ৩ সংযুক্তা লিও, দার্জিলিংয়ের জোনাল ল্যাপরোস্কপি অফিসার দেবাশীষ সরকার পরিদর্শনের জন্য ক্যাম্পে উপস্থিত হয়েছিলেন।

- Advertisement -

এদিন ফাঁসিদেওয়া গ্রামীণ হাসপাতাল ক্যাম্পাসে সাব হেলথ সেন্টার উদ্বোধনের পর সেখানেই এই কর্মসূচি করা হয়েছে। ফাঁসিদেওয়া বাঁশগাও কিশমত গ্রাম পঞ্চায়েতের তরফে ওই আবাসনের চাবি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। ফাঁসিদেওয়ার বিডিও সঞ্জু গুহমজুমদার, ফাঁসিদেওয়া ব্লক স্বাস্থ্য আধিকারিক অরুণাভ দাস, শিলিগুড়ি মহকুমা পরিষদের সদ্য প্রাক্তন সদস্য আইনুল হক সাব হেলথ সেন্টারের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে হাজির হয়েছিলেন। ওই অনুষ্ঠানের পর নতুন বিল্ডিংয়ে ভ্যাকসিন দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু হয়েছিল।

ফাঁসিদেওয়ার স্বাস্থ্য আধিকারিক অরুণাভ দাস জানিয়েছেন, অঙ্গনওয়ারী কর্মীরা করোনা ভ্যাকসিন নিতে আসেননি। এটা দুর্ভাগ্যজনক। তবে, সবার মধ্যে ভালো সাড়া পাওয়া গিয়েছে। সন্ধ্যা নাগাদ ভ্যাকসিনেশন কর্মসূচি শেষ হয়। প্রথমদিন এই ভ্যকসিনের কোনও পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা যায়নি। তিনি আরও বলেন, জেলার নির্দেশ পেলে, ফের ভ্যাকসিন দেওয়া শুরু করা হবে। তবে, ভ্যাকসিন গ্রহণের ক্ষেত্রে অনীহার কথা তিনি অস্বীকার করেছেন।