তৃণমূল বিজেপির পায়ে আত্মসমর্পণ করেছে, মন্তব্য মিনাক্ষীর

95

বর্ধমান: তৃণমূল বিজেপির পায়ে আত্মসমর্পণ করে ফেলেছে। তাই হাত বেঁধে রাখলেও এইবার আর কেউ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নবান্নে ধরে রাখতে পারবেন না। নবান্ন থেকে আপদ বিদায় হচ্ছে বলে মঙ্গলবার পূর্ব বর্ধমানের সাতগাছিয়ার জনসভা থেকে সুর চড়ালেন সিপিএম নেত্রী মিনাক্ষী মুখোপাধ্যায়। জেলার মন্তেশ্বর বিধানসভার সিপিআইএম প্রার্থী অনুপম ঘোষের সমর্থনে এদিন সাতগাছিয়ায় নির্বাচনী জনসভার মঞ্চ থেকে একযোগে তৃণমূল ও বিজেপিকে আক্রমণ করেন।

সিপিএম নেত্রী তথা নন্দীগ্রাম বিধানসভায় মমতা-শুভেন্দুর অন্যতম প্রতিদ্বন্দী বাম প্রার্থী মিনাক্ষী মুখোপাধ্যায় এদিন আরও বলেন, ‘এতদিন পশ্চিমবঙ্গে সরকার চলেনি, চলেছে সার্কাস। নীল সাদা রংয়ের বিল্ডিংগুলো ঘুঘুর বাসায় পরিণত হয়েছে। সেই বাসা এবার ভাঙতে হবে।’ অন্যদিকে, মন্তেশ্বর বিধানসভার তৃণমূল প্রার্থী সিদ্দিকুল্লাহ চৌধুরীকে কটাক্ষ করে তিনি বলেন, ‘উনি নিজের দলটিকেও কাটমানি-তোলাবাজি সিন্ডিকেটের কাছে বিক্রি করে দিয়েছেন।’ একইভাবে মন্থেশ্বরের বিজেপি প্রার্থী সৈকত পাঁজাকে কটাক্ষ করে মিনাক্ষী মন্তব্য করেন, তৃণমূলে ক্ষীর খেয়ে নেপোয় দই মেরে উনি বিজেপিতে চলে গেছেন। পাশাপাশি কালনার বিজেপি প্রার্থী বিশ্বজিৎ কুন্ডুরও কড়া সমালোচনা করেন সিপিএমের এই দাপুটে নেত্রী। ‘টেট’ দুর্নীতির প্রসঙ্গ তুলে ধরে তিনি প্রশ্ন তুলে মন্তব্য করেন, বিশ্বজিৎ কুণ্ডুকে এখনও কেন গ্রেপ্তার করা হল না? নিজেই প্রশ্নের উত্তর দিয়ে বলেন, ‘দিদিমণিও তো ওরথেকে কাটমানি খেয়েছেন। তৃণমূলে দুর্নীতি করে বিশ্বজিৎ কুন্ডু এখন বলছেন বীরভূম ও মেদিনীপুরের বাবুকেও পয়সা দিয়েছি, কালীঘাটের টালির বাড়িতে থাকা দিদিকেও ভাগ দিতে হয়েছে বলে বলছেন।

- Advertisement -

বিজেপির সমালোচনা করে মিনাক্ষী মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘তৃণমূলের ছাতাটা ছোট, বিজেপির ছাতাটা বড়। তাই তৃণমূলের দুর্নীতিবাজ, তোলাবাজ, লম্পটগুলো এখন বড় ছাতার তলায় আশ্রয় নিয়েছে। অন্যদিকে, এনআরসি প্রসঙ্গে মিনাক্ষীর মন্তব্য, কোনও মায়ের ব্যাটার হিম্মত হবে না এই দেশ থেকে কাউকে তাড়িয়ে দেওয়ার। বিজেপি দেশটাকে বেচে দিচ্ছে। তারমানে মা’কেও বেচে দেওয়া। এটা তা কোনোভাবেই করতে দেওয়া যাবে না বলে জনসভা থেকে এদিন হুঁশিয়ারি দেন মিনাক্ষী।