বাংলা বনধকে কেন্দ্র করে সিপিএমের জোরজবরদস্তি, টায়ার জ্বালিয়ে অবরোধ

93

আসানসোল ও দুর্গাপুর: নবান্ন অভিযানে বৃহস্পতিবার পুলিশের জোরজুলুমের প্রতিবাদে শুক্রবার ১২ ঘণ্টার ডাকা বাংলা বনধকে ঘিরে মিশ্র প্রতিক্রিয়া পাওয়া গেল পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুই শিল্প শহর আসানসোল ও দুর্গাপুরে। এদিন দুই শহরে জনজীবন স্বাভাবিক ছিল। আসানসোলের জিটি রোডের বিভিন্ন জায়গায় সকালে সিপিএমের নেতা ও কর্মী জোর করে বাস, মোটরসাইকেল ও গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করেন। অভিযোগ, তাঁরা মোটরসাইকেল চালকের উপরে চড়াও হয়ে তাঁকে মারধর ও হেনস্তা করে। যদিও সিপিএমের তরফে এই অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। পরে আসানসোল দক্ষিণ থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি সামাল দেয়।

এদিন সকালে সিপিএমের পশ্চিম বর্ধমান জেলা সদস্য পার্থ মুখোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে আসানসোলের বিএনআর থেকে বনধের সমর্থনে মিছিল বেরোয়। সেই মিছিল জিটি রোড ধরে সিটি বাস স্ট্যান্ড পর্যন্ত আসে। আসানসোল শহর তথা শিল্পাঞ্চলের অন্য জায়গাতেও বনধ সমর্থকরা রাস্তায় নামেন। এদিন সকাল ৬টা থেকে বিকেল ৬টা পর্যন্ত ১২ ঘণ্টার বাংলা বনধকে সমর্থন করেছে কংগ্রেস।

- Advertisement -

সিপিএম নেতা পার্থ মুখোপাধ্যায় সহ অন্য নেতা ও কর্মীরা মিছিল করেন্ বনধ সফল করার জন্য জনগণের কাছে আবেদন করেন। বাসস্ট্যান্ডে সিপিএমের নেতা ও কর্মীরা বেশকিছু সরকারি বাসকে আটকে দেন। তারা একইভাবে গীর্জা মোড়, চেলিডাঙ্গা মোড়ে জোর করে গাড়ি আটকানোর চেষ্টা করেন। পরে সিপিএমের সঙ্গে মিছিলে যোগ দেন কংগ্রেস নেতা অশোক রায়ের নেতৃত্বে কর্মীরা ও সমর্থকরা।

দুর্গাপুরের এইচএফসিএল মোড় এলাকায় রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় সিপিএম ও কংগ্রেসের নেতা ও কর্মীরা। তাঁরা টায়ার জ্বালিয়ে বিক্ষোভ দেখান। পুলিশকে এখানে গোলাপ ফুল ও চকলেট দেওয়া হয়। অন্যদিকে, বনধের বিরোধিতায় এদিন আসানসোলের জিটি রোডে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের শ্রমিক সংগঠন আইএনটিটিইউসির নেতা রাজু আলুওয়ালিয়ার নেতৃত্বে একটি মিছিল করা হয়।