পুজোর বাজার করতে হলদিবাড়ির বাজারে উপচে পড়া ভিড়

0
242
- Advertisement -

হলদিবাড়ি: করোনার গ্রাফ দিনদিন উর্ধমুখী হলেও ভ্রূক্ষেপ নেই সাধারণ মানুষের। করোনা সংক্রমণ উপেক্ষা করে পুজোর আগে শেষ রবিবার হলদিবাড়ি শহরের বাজারে উপচে পড়ল ভিড়। বাজারের ভিড় নিয়ন্ত্রণে পুর কর্তৃপক্ষের তরফে প্রায় প্রতিদিন মাইকিং করে সচেতনতার প্রচার হচ্ছে। কিন্তু তাতেও বাজারে ভিড় তথা জমায়েত নিয়ন্ত্রণ করা যে প্রায় অসম্ভব রবিবারের বাজারের চিত্র তারই প্রমাণ বলছে।

এদিকে হলদিবাড়ি পুরভবন চত্ত্বরে ১৩৫ জনের র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন টেস্ট হয়। ব্লক স্বাস্থ্য দপ্তর সূত্রে দাবি, তাদের মধ্যে ১৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস সংক্রমণ ধরা পড়েছে।  র‍্যাপিড টেস্টে আরও তিনজন করোনা আক্রান্ত হছেন। আক্রান্তদের হোম কোয়ারান্টিনে থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এরআগে গত মঙ্গলবার একদিনে হলদিবাড়ি ব্লকে ২৮ জন আক্রান্তের হদিস মেলে। ইতিপূর্বে একদিনে হলদিবাড়িতে এত সংখ্যক আক্রান্তের হদিস পাওয়া যায়নি। এভাবে অক্রান্তের সংখ্যা বাড়তে থাকলে পুজোর পরে চিত্রটা কী হবে তা ভেবে কপালে ভাঁজ পড়েছে প্রশাসনের।

রবিবার সকাল থেকে বাজারের কাপড়ের দোকানগুলিতে সাধারণ মানুষের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গিয়েছে। অভিযোগ, বাজারে আগত ক্রেতা থেকে শুরু করে দোকানদারদের অনেকেরই মুখে মাস্ক নেই। একে অপরের গা ঘেঁষে প্রচুর মানুষ একত্রে পুজোর কেনাকাটা করছেন। শিকয় উঠেছে সামাজিক দূরত্বের বিধি।

এ বিষয়ে পুরসভার প্রশাসক সঞ্জয় পন্ডিত বলেন, আনলক পর্ব শুরু হতেই শিকয় উঠেছে নূন্যতম স্বাস্থ্যবিধি। সুস্থতার হার বৃদ্ধি পেতেই মানুষের মন থেকে ভীতি অনেকটাই কেটে গিয়েছে। যারফলে আক্রান্তের সংখ্যা হুহু করে বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রতিদিন নিয়ম করে মাইকযোগে প্রচারের পাশাপাশি স্বাস্থ্যকর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সচেতনতার প্রচার চালাচ্ছে। দুর্ভাগ্যের বিষয় তবুও মানুষ সচেতন হচ্ছেন না।

- Advertisement -