উত্তরবঙ্গকে তুলে ধরতে সংস্কৃতি মহোৎসব, দাবি সাংসদের

121

ভাস্কর চক্রবর্তী, দার্জিলিং: মহাধুমধামের সঙ্গে শেষ হল রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি মহোৎসব। বুধবার নানা বর্ণাঢ্য অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দেশের সংস্কৃতি মন্ত্রালয়ের উদ্যোগে দার্জিলিংয়ের রাজ ভবনে তিন দিনব্যাপী রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি মহোৎসবের সমাপন হয়। এদিনের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন দার্জিলিং লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ তথা দলের মুখপাত্র রাজু বিস্ট।

এদিন রাজু বিস্ট বলেন, ‘উত্তরবঙ্গ সবসময়ই আলাদা। কারণ এখানে বহুবিধ জাতির পাশাপাশি ব্হু ভাষাভাষীর মানুষ বাস করেন। প্রতিটি অঞ্চলের নিজস্ব ভাষা রয়েছে, সাহিত্য, সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের বৈচিত্রময়তাই উত্তরবঙ্গকে দেশের মধ্যে একটি স্বতন্ত্র পরিচয় দেয়। কিন্তু দুঃখের বিষয় হলেও, সংস্কৃতিগতভাবে এত বিচিত্র এবং সমৃদ্ধ হওয়া সত্ত্বেও আমাদের অঞ্চলটিকে কখনও জাতীয় স্তরে তুলে ধরা হয়নি।’

- Advertisement -
উত্তরবঙ্গকে তুলে ধরতে সংস্কৃতি মহোৎসব, দাবি সাংসদের| Uttarbanga Sambad | Latest Bengali News | বাংলা সংবাদ, বাংলা খবর | Live Breaking News North Bengal | COVID-19 Latest Report From Northbengal West Bengal India
দার্জিলিংয়ে সংস্কৃতি মহোৎসবে যোগ দেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর।

এদিন সাংসদ প্রধানমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে বলেন, ‘আমি কৃতজ্ঞ নরেন্দ্র মোদিজি এবং পর্যটন ও সংস্কৃতি মন্ত্রী প্রহ্লাদ প্যাটেলের কাছে।  তাঁদের দূরদর্শীতা ও সঠিক নেতৃত্বে, অবশেষে উত্তরবঙ্গ এবং উত্তরপূর্ব অঞ্চল থেকেও সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্যের এক অন্যতম মিশ্রণ হিসেবে দার্জিলিংয়ে এই রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি মহোৎসব হল।’

তিনি আরও বলেন, ‘যদিও এই প্রথমবারের মতো আমাদের পাহাড়ে একটি জাতীয় উৎসবের আয়োজন করা হল, তবে এটি কেবল একটি সূচনা। এগিয়ে যেতে, আমি আমাদের অঞ্চলে আরও এই জাতীয় অনুষ্ঠানের আয়োজন করার চেষ্টা করব, যা সারা বিশ্ব থেকে শিল্পীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করবে।’

এদিকে দার্জিলিংয়ে সংস্কৃতি মহোৎসবে যোগ দেন সস্ত্রীক রাজ্যপাল জগদীপ ধনকর। এদিন রাজ্যপাল ও তাঁর স্ত্রী সুদেশ ধনকড়কে অভ্যর্থনা জানিয়ে সাংসদ বলেন, ‘আমি আমাদের রাজ্যের রাজ্যপাল ও বাংলার প্রথম মহিলাকে ধন্যবাদ জানাই, তাঁরা আজ পাহাড়ের এই সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত রয়েছেন।’