মোবাইল ব্যবহার করে পাতা হচ্ছে ফাঁদ, ধরা পড়ছে পাখি

122

মেখলিগঞ্জ: মোবাইলে পাখির শব্দ ব্যবহার করে পাতা থাকছে ফাঁদ। আর সেই ফাঁদেই পা দিচ্ছে ডাহুক সহ অন্যান্য পাখি। এই পাখি নাকি বাজারে ভালো দামে বিক্রিও হচ্ছে। জঙ্গল লাগোয়া এলাকায় এমনভাবে পাখি ধরে বাজারে বিক্রি করার চক্র সক্রিয় বলে মনে করছেন অনেকেই। শুক্রবার বিষয়টি নজরে আসে শিক্ষক তথা সমাজকর্মী সুজন সরকারের। তিনি কোচবিহার সদর এলাকার বাসিন্দা এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ইন্ডিয়ান কনজারভেশন অর্গানাইজেশনের সহ সম্পাদক পদে রয়েছেন।

সুজনবাবু জানান, তিনি একটি অচেনা ব্য়ক্তিকে জঙ্গলের মধ্যে মোবাইলে পাখির শব্দ ব্যবহার করে ফাঁদ পাততে দেখেন। এরপরই বিষয়টি নিয়ে তিনি বন দপ্তরের ডিএফও-এর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। যে ব্যক্তি ফাঁদ পেতেছিল তাঁকেও আটক করেন সুজনবাবু। সেই ব্যক্তির ব্যাগ থেকে পরপর পাঁচটি ডাহুক পাখি উদ্ধার করেন তিনি। ওই ব্যক্তিকে জিজ্ঞাসা করে সুজনবাবু জানতে পারেন, এই পাখি বাজারে নাকি দেড়শো টাকা জোড়া দামে বিক্রি হয়। যদিও পরে ওই ব্যক্তি সেখান থেকে পালিয়ে যেতে সক্ষম হন। পরে মেখলিগঞ্জ বন দপ্তরের লোকজন ঘটনাস্থলে এলে তাদের হাতে পাখিগুলো তুলে দেওয়া হয়। মেখলিগঞ্জের রেঞ্জ অফিসার দিনেশ লিম্বু জানান, পাখিগুলোকে নিয়ে এসে পরীক্ষা করার পর জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে।

- Advertisement -