কর্মী সংকট, ধুঁকছে ডালখোলা প্রাণী স্বাস্থ্যকেন্দ্র  

88

ডালখোলা: ধুঁকছে ডালখোলা রাজ্য প্রানী স্বাস্থ্যকেন্দ্র। স্বাস্থ্যকেন্দ্রটিতে নেই কোন চতুর্থ শ্রেনীর কর্মচারী, নেই কোন প্রাণী উন্নয়ন সহায়ক, নেই কোন ফার্মাসিস্ট। রয়েছেন একজন অস্থায়ী চিকিৎসক। তিনি শান্তনু গড়াই। গোয়ালপোখর ২ ব্লকের ব্লক প্রানী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে কর্মরত শান্তনুবাবু। তিনিই রয়েছেন ডালখোলা পৌরসভার একমাত্র পশু হাস্পাতালের চার্জে। সপ্তাহে তিন দিন বসার কথা থাকলেও বৃহস্পতিবার ও মঙ্গলবারই ওই হাসপাতালে বসেন ওই চিকিৎসক।

ডালখোলা পৌরসভার বাসিন্দা জ্যোতি সিদ্ধা জানান, ডালখোলা পৌরসভার একমাত্র পশু চিকিৎসা কেন্দ্রটিতে পরিসেবা অমিল। যার ফলে পশুদের প্রজনন ইঞ্জেকশন দেওয়া যাচ্ছেনা। এলাকার পশু পালকদের অভিযোগ, দৈনন্দিন ন্যূনতম পরিষেবাটুকু মিলছেনা এই পশু হাসপাতালে। হাসপাতালের হাল এমনই। ফলে গবাদি পশুর রোগ নিয়ে চরম দুর্ভোগে পড়ছেন পৌর এলাকার মানুষ। হাসপাতালটির দুরবস্থার কথা স্বীকার করে জেলা প্রাণী সম্পদ বিকাশ দফতরের এক কর্তা বলেন, ‘শুধু ডালখোলা নয়। সারা রাজ্য জুড়েই প্রাণী সম্পদ বিকাশ দপ্তরে কর্মী ও ওষুধের সংকট চলছে।’ ডাঃ শান্তনু গড়াই জানান, তিনি সপ্তাহে দুই দিন হাসপাতালে যান। তাছাড়া বাকি দিন একজন ঝাড়ুদার ও একজন প্রানী মিত্র রয়েছেন তারাই অফিস খোলেন। ডালখোলা পৌরসভার চেয়ারপার্সন তনয় দে বলেন, একজন ভারপ্রাপ্ত চিকিৎসক দিয়ে হাসপাতাল চালানো যায় না। বিষয়টি জেলা শাসককে জানাবো। উত্তর দিনাজপুর জেলা পরিষদের প্রাণী সম্পদ কর্মাধ্যক্ষ পম্পা পাল জানান, ‘বিষয়টা গুরুত্ব সহকারে দেখার জন্য জেলা আধিকারিককেকে বলব।’

- Advertisement -