দক্ষিণ খয়েরবাড়িতে রাস্তার দশায় ক্ষোভ

211

রাঙ্গালিবাজনা : দীর্ঘদিন আগেই রাস্তার পিচের চাদর উধাও হযে পাথর বেরিয়ে গিয়েছে। ফলে রাস্তাজুড়ে গর্ত তৈরি হয়েছে। মাদারিহাট-বীরপাড়া ব্লকের খযেবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েতের দক্ষিণ খয়েরবাড়ির রাযপাড়া ও কাজিপাড়ার মধ্যে যে রাস্তা রয়েছে, তার বেহাল অবস্থায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী। রায়পাড়া, কাজিপাড়া ও কোণাপাড়ার বাসিন্দারা এই রাস্তাটির ওপর নির্ভরশীল। এছাড়া বীরপাড়া, শিশুবাড়ি যাওয়ার জন্য রাঙ্গালিবাজনা চৌপথি হয়ে না গিযে অন্য এলাকার বাসিন্দারাও এই রাস্তাটি ব্যবহার করেন।

৩১সি জাতীয় সড়কের মুজনাই সেতু থেকে শুরু হয়ে এই রাস্তাটি রাযপাড়া, কাজিপাড়া হযে রাঙ্গালিবাজনা-ফালাকাটা সড়কে মিশেছে। কিন্তু এখন সেটির যা অবস্থা, তাতে চলাচল করাই মুশকিল হয়ে পড়েছে। বছর পাঁচেক আগে আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদ কর্তৃপক্ষ রাস্তাটি পাকা করে। বছরখানেক আগে অবশ্য খয়েরবাড়ি গ্রাম পঞ্চায়েত বালি-বজরি দিয়ে গর্ত বোজানোর চেষ্টা করেছিল। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, দেড় কিমি লম্বা রাস্তাটি নির্মাণের সময়ই কাজের মান নিযে প্রশ্ন উঠেছিল। তখন ঠিকাদার ও বাস্তুকারকে ঘিরে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন স্থানীয বাসিন্দারা। পাকা রাস্তা তৈরির কিছুদিন পর থেকেই পিচের চাদর উঠে যেতে শুরু করে। স্থানীয় বাসিন্দা ফিরোজ খান বলেন, ‘কাটা পাথরে গাড়ির টায়ার নষ্ট হযে যাচ্ছে। হেঁটে যাতায়াত করতেও সমস্যা হচ্ছে। রাস্তাটি পুনর্নির্মাণ করা প্রযোজন। মাদারিহাট-বীরপাড়া পঞ্চায়েত সমিতির পূর্ত কর্মাধ্যক্ষ রশিদুল আলম বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতিতে কিছু উন্নয়নমূলক কাজ মাঝপথে আটকে রয়েছে। কিছু কাজের পরিকল্পনা করার প্রক্রিয়াও আটকে রয়েছে। তবে শীঘ্রই ফের উন্নযনমূলক কাজকর্ম শুরু হবে। কাজিপাড়া, রায়পাড়ার রাস্তা পুনর্নির্মাণে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’ আলিপুরদুয়ার জেলা পরিষদের স্থানী. সদস্যা আশা নার্জিনারি বলেন, ‘করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই ওই বেহাল রাস্তাটি পুনর্নির্মাণের জন্য প্রযোজনীয প্রক্রিয়া শুরু করা হবে।’

- Advertisement -

ছবি- দক্ষিণ খয়েরবাড়ির ভাঙা রাস্তা্

তথ্য ছবি- মোস্তাক মোরশেদ হোসেন