বেহাল রাস্তায় পুজোয় জঙ্গল সাফারি নিয়ে সংশয়

412

শুভদীপ শর্মা, লাটাগুড়ি : তিন মাস বন্ধ থাকার পর আগামী ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে পর্যটকদের জন্য ফের খুলে যাচ্ছে গরুমারা ও লাটাগুড়ির জঙ্গল সাফারি। তবে, চলতি বছর লাটাগুড়ির জঙ্গলের রাস্তাগুলি মেরামত না হওয়ায় অধিকাংশই বেহাল হয়ে পড়েছে। তাই পর্যটক নিয়ে জঙ্গলের রাস্তায় এবার অনেক বেশি ঝুঁকি নিয়ে চলতে হবে বলে আশঙ্কা জিপসিচালকদের। রাস্তা বেহাল থাকায় জঙ্গল সাফারির সমস্ত এলাকা পর্যটকদের ঘোরানো সম্ভব হবে কিনা তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি লাটাগুড়িতে বিচাভাঙ্গা রেল ক্রসিংয়ে রেল ওভারব্রিজ তৈরির জন্য গরুমারায় প্রবেশের টিকিট কাউন্টার ভাঙা হলেও তা তৈরি না হওয়ায় পর্যটকরা কোথা থেকে টিকিট পাবেন, তা নিয়ে ধোঁয়াশা রয়েছে। যদিও বন দপ্তর পুজোর আগেই রাস্তা মেরামত করার আশ্বাস দিয়েছে।

প্রতি বছর বর্ষার তিনমাস বন্ধ থাকার সময় জঙ্গলের রাস্তাঘাট মেরামত করা হয়। কিন্তু চলতি বছর তা করা হয়নি বলে অভিযোগ। যার জেরে জঙ্গলের রাস্তায় গাড়ি চালানোই দায় হয়ে পড়বে বলে আশঙ্কা জিপসিচালকদের। খানাখন্দে ভরা জঙ্গল সাফারির রাস্তায় যেকোনো সময় দুর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন জিপসিচালকরা। লাটাগুড়ি জিপসি ওনার্স অ্যাসোসিয়েনের সম্পাদক সমীর দেব বলেন, প্রতিবার বর্ষার পর জঙ্গল খোলার আগে ভিতরের রাস্তাঘাট মেরামত করা হয়। কিন্তু এবার সে সবের বালাই নেই। লাটাগুড়ির জঙ্গলে, বিশেষ করে লাটাগুড়ি বিট, সেন্ট্রাল বিটের রাস্তার অবস্থা মারাত্মক।

- Advertisement -

সব মিলিয়ে লাটাগুড়ির জঙ্গলে পর্যটকদের প্রায় ৪২ কিলোমিটার জঙ্গল সাফারি করানো হয়। এর জন্য ৬ জন পর্যটকপিছু একটি জিপসি গাড়ি, একজন গাইড মিলে খরচ হয় ১১৪০ টাকা জিপসি ভাড়া, গাইডের জন্য ২০০ টাকা, এনট্রি ফি ৫০ টাকা ও জনপ্রতি ২৫ টাকা। তবে জঙ্গলের রাস্তা বেহাল থাকায় পর্যটকদের ৪২ কিলোমিটার ঘোরানো যাবে কিনা তা নিয়ে সংশয় দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি লাটাগুড়িতে বিচাভাঙ্গা রেল ক্রসিংয়ে রেল ওভারব্রিজ তৈরির জন্য গরুমারায় প্রবেশের টিকিট কাউন্টার ভাঙা হয়েছিল যা এখনও মেরামত হয়নি। পর্যটকরা কোথা থেকে টিকিট পাবেন ও রোদ-বৃষ্টি হলে কোথায় দাঁড়াবেন তা নিয়ে দেখা দিয়েছে প্রশ্নচিহ্ন। যদিও গরুমারা বন্যপ্রাণী বিভাগের ডিএফও নিশা গোস্বামী জানান, টিকিট কাউন্টার তৈরির কাজ চলছে। শীঘ্রই সেই কাজ শেষ হবে। সেখানে পর্যটকদের বসার ব্যবস্থাও থাকবে। বন দপ্তরের লাটাগুড়ি রেঞ্জ সূত্রে খবর, জঙ্গল সাফারির রাস্তা মেরামতের প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে। পুজোর আগেই সমস্ত রাস্তা মেরামত করা হয়ে যাবে।