শাশুড়িকে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারার অভিযোগে গ্রেপ্তার বৌমা

410
ধৃত বৌমা রাণু হাজরা।

বর্ধমান: বৃদ্ধা শাশুড়িকে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারা অভিযোগে গ্রেপ্তার সরকারি কর্মচারী বৌমা। শুক্রবার পূর্ব বর্ধমানের খণ্ডঘোষ থানার খুদকুড়ি গ্রামের ঘটনা। বৃদ্ধার ছেলে অচিন্ত সিংহর লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতেই বৌমা রাণু হাজরাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। এদিকে অ্যাসিড হামলায় দগ্ধ শাশুড়ি তিলত্তমা সিংহকে উদ্ধার করে খণ্ডঘোষ ব্লক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়। শাশুড়ির প্রতি পুত্রবধূর এমন নিষ্টুরতা দেখে স্তম্ভিত খুদকুড়ি গ্রামের বাসিন্দারা।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে খবর, তিলত্তমা সিংহ খুদকুড়ি প্রথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে নার্সের কাজ করতেন। সম্প্রতি তিনি আবসর গ্রহণ করেন। তাঁর স্বামী বাড়িতে শয্যাশায়ী। বর্তমানে খুদকুড়ি স্বাস্থ্য কেন্দ্রের কোয়াটারেরই স্বপরিবার বসবাস করেন। অভিযোগ, এদিন দুপুর বেলায় তিলত্তমাদেবীর শরীরে অ্যাসিড ছুঁড়ে মারে তাঁর পুত্র বধূ । যা নিয়ে এলাকায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে।

- Advertisement -

খণ্ডঘোষ থানায় অভিযোগে দায়ের করার পর তিলত্তমাদেবীর ছেলে অচিন্ত সিংহ জানান, এক বছর দু-মাস আগে তার সঙ্গে রাণু হাজরার বিয়ে হয়। খণ্ডঘোষের বোঁয়াইচণ্ডী গ্রামে রাণুর বাবার বাড়ি। সে বাঁকুড়ার পাত্রসায়ারের সরকরি অফিসে ক্লার্ক পদে কাজ করে। পেশায় ব্যবসায়ী অচিন্ত বলেন, তাঁর সংসার জীবন সুখের হয়নি। বিয়ের পরথেকেই স্ত্রী রাণুর সঙ্গে তাঁর অশান্তি লেগেই রয়েছে। একবার বাবার বাড়ি গেলে কখনও দু-মাস আবার কখনও তিন মাস বাদ রাণু শ্বশুর বাড়ি ফেরে।

অচিন্ত জানান, এই সব নিয়েই এদিন রাণুর সঙ্গে তাঁর কথা কাটাকাটি শুরু হয়। তখন তাঁর মা তিলত্তমাদেবী তাঁকে ও রাণুকে শান্ত হতে বলেন। তা শুনে রাণু তাঁর শাশুড়িমাকে বলে, ‘তুমিই যত নষ্টের গোড়া’। এরপর ঘরে ঢুকে নিজের ব্যাগ খুলে রাণু অ্যাসিড ভর্তি একটি বোতল বেরকরে আনে। সেই অ্যাসিড রাণু তাঁর শাশুড়িকে লক্ষ্য করে ছুঁড়ে মারে।

অচিন্ত জানিয়েছেন, আ্যাসিডে তাঁর মায়ের শরীরের বিভিন্ন জায়গা ঝলসে গিয়েছে। স্ত্রীর বিরুদ্ধে আইন মাফিক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি পুলিশের কাছে জানিয়েছেন ,অ্যাসিড হামলায় আক্রান্তের ছেলে। পুলিশ অভিযোগের তদন্ত শুরু করেছে।