টানা পাঁচ ঘন্টা ধরে টালবাহানার পর অবশেষে দাহ করা হল মৃতদেহ

276

বারুইপুর: দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টা ধরে বিভিন্ন টালবাহানার পর অবশেষে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বারাইপুরের দোসা এলাকার বাসিন্দা উত্তম নস্করের দেহ সৎকার করা হল। এদিন মৃতদেহ সৎকার করা নিয়ে শ্মশানে বিপত্তি দেখা দেয়।

জানা গিয়েছে, বেশ কয়েকদিন যাবৎ জ্বর সর্দি-কাশি নিয়ে বারুইপুর হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ওই ব্যক্তি। গতকাল রাতেই তাঁর মৃত্যু হয়। আজ সকালে তাঁর মৃতদেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। মৃত্যুর কারণ হিসেবে ডেথ সার্টিফিকেটে নিউমোনিয়ার কথা লেখা রয়েছে।

- Advertisement -

এদিন মৃতের পরিবারের সদস্যরা বারাইপুর কীর্তনখোলা মহাশ্মশানে তাঁর দেহ দাহ করার জন্য নিয়ে আসেন। আর সেখানেই দেখা দেয় বিপত্তি। শ্মশান কর্তৃপক্ষের তরফে দেহ সৎকার করতে বাধা দেওয়া হয়। তাদের বক্তব্য, নিউমোনিয়া করোনারই প্রকারভেদ। তাই সেই মৃতদেহ দাহ করতে রাজি নন তারা। শুধু তাই নয় যেহেতু মৃত ব্যক্তির শরীরের করোনা পরীক্ষা করা হয়েছিল তার রিপোর্ট যতক্ষণ না নেগেটিভ বলে তারা হাতে পাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত সেখানে সেই মৃতদেহ দাহ করতে দেওয়া যাবে না। বিষয়টি বিদায় পুর চেয়ারম্যান পর্যন্ত গড়ায়। কিন্তু তাতেও কোনো কাজের কাজ হয়নি বলে অভিযোগ। এরপর বিষয়টি সংবাদ মাধ্যম মারফত জানাজানি হতে নড়েচড়ে বসে পুর ও শ্মশান কর্তৃপক্ষ। টানা ৫ ঘন্টা ধরে পড়ে থাকার পর অবশেষে কোনোরকম পরলৌকিক ক্রিয়া না করেই দেহ দাহ করা হয়। এমনকি সেখানে শ্মশান কর্তৃপক্ষের কেউই সেই মৃতদেহের ধারে কাছে যেতে রাজি হননি। ৫ ঘন্টা পর অবশেষে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয়।