কার্যত বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু মিনার, শোকের ছায়া এলাকায়

187

পারডুবি: ১৪ বছরের নবম শ্রেণীতে পাঠরতা মিনা নমদাস জটিল আক্রান্ত ছিল। অর্থের অভাবে কার্যত বিনা চিকিৎসায় বৃহস্পতিবার রাতে তাঁর মৃত্যু ঘটে। শুক্রবার মাথাভাঙ্গা ২ ব্লকের পারডুবি গ্রাম পঞ্চায়েতের পূর্ব পারডুবি লাগোয়া এলাকায় নিজের বাড়িতে মৃতদেহ পৌঁছোতেই গোটা এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

স্থানীয় ও পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে, প্রায় দু’বছর আগে হার্টের সমস্যা দেখা দেয় মিনা নমদাসের। আলিপুরদুয়ার ও কলকাতাতে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করানো হয়। সেখানে বিভিন্ন পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে চিকিৎসকরা জানান, তাঁর হার্টের সমস্যা হয়েছে। জরুরি ভিত্তিতে অপারেশন প্রয়োজন। এরপরেই গত তিন চার মাস ধরে তাঁর কিডনিতেও সমস্যা দেখা দেয় বলে জানান মা হমেশ্বরী নমদাস। বাবা প্রফুল্ল নমদাস কৃষিকাজ করে সংসার চালাতেন কোনরকমে। এমতাবস্থায় সরকারি ও বেসরকারি সাহায্যের আর্জিও জানিয়েছিল পরিবারটি। সেই খবর সম্প্রতি উত্তরবঙ্গ সংবাদে প্রকাশিত হয়। এরপরেই বুধবার মিনার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পারডুবি এলএইচটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার সদস্যদের সহযোগিতায় তাঁকে মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গতকাল রাতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করে মিনা।

- Advertisement -

পারডুবি এলএইচটি-এর সম্পাদক ঋষিকেশ রায় জানান, মিনার শারীরিক অসুস্থতার  বিষয়টি জানতে পেরে তাঁকে মাথাভাঙ্গা মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। এছাড়াও তাঁর পরিবারকে সহযোগিতা করার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না।