কোভিড-বিতর্ক সরিয়ে ফিরছেন নর্তজে

মুম্বই : রিপোর্ট ভুল।

অজানা আশঙ্কা নিয়ে কয়েকটা দিন কাটানো। সুস্থ থেকেও মাঠে নামতে পারেননি গত ম্যাচে। ভুল বোঝাবুঝি আপাতত দূর। আগামীকালই সম্ভবত পাঞ্জাব কিংসের বিরুদ্ধে দিল্লির জার্সিতে প্রত্যাবর্তন ঘটছে অ্যানরিক নর্তজের।

- Advertisement -

গত মরশুমে রাবাদা-নর্তজের প্রোটিয়া পেস জুটি দাপট দেখিয়েছিল। আগের ম্যাচে রাবাদাকে পাওয়া গেলেও, নর্তজেহীন পেস ব্রিগেড সেভাবে ছাপ ফেলতে পারেননি। কাল দুই প্রোটিয়া তারকা জুটিকে নিয়ে ঝাঁপানোর স্ট্র‌্যাটেজি রিকি পন্টিংদের।

প্রতিপক্ষ পাঞ্জাব কিছুটা ব্যাকফুটে। চেন্নাইয়ের কাছে শুক্রবারই বিশ্রীভাবে হেরেছে চূড়ান্ত ব্যাটিং ব্যর্থতার কারণে। দীপক চাহারের সুইংয়ের সামনে পড়ে কোনওক্রমে একশো পার। কাল সেখানে রাবাদা-নর্তজের মতো তারকা ও বিপজ্জনক পেস জুটি। চেন্নাই-ম্যাচের ব্যর্থতা কাটিয়ে জয়ে ফিরতে গেইলদের জন্য থাকছে কঠিন চ্যালেঞ্জ।

এদিকে, দিল্লির সুখি সংসারে হঠাৎ বিতর্কের আঁচ। ভালো বোলিং স্বত্বেও রাজস্থান রয়্যালস ম্যাচে অভিজ্ঞ রবিচন্দ্রন অশ্বীনকে পুরো কোটা বল করাননি ঋষভ। বদলে টম কুরানকে দিয়ে বোলিং করিয়ে খেসারত দিয়েছেন। কেন? কোনও সদুত্তর নেই। প্রবল সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে ঋষভকে। কোচ রিকি পন্টিংও ক্ষুব্ধ। অধিনায়ক ঋষভের থেকে আরও ভালো পদক্ষেপ আশা করেন বলেও জানিয়েছেন। জবাব দিতে দলকে জয়ে রাস্তায় ফেরানো জরুরি ঋষভের জন্য।

আইপিএলে উত্তরের ডার্বি বলা হয় দিল্লি-পাঞ্জাব ম্যাচকে। দ্বিপাক্ষিক ডুয়েলে যার প্রতিফলন মিলেছে বারবার। পরিসংখ্যানে কিছুটা এগিয়ে পাঞ্জাবই। ২৬ ম্যাচের মধ্যে ১৫টিতে জিতেছে তারা। দিল্লির জয় ১১। দুই দলের যা শক্তি, দুর্বলতা, তাতে দিল্লি সামান্য এগিয়ে থাকলেও, ম্যাচের ভবিষ্যদবাণী করা মুশকিল। অতএব অপেক্ষা।