সুশীলের আগাম জামিনে না কোর্টের

নয়াদিল্লি : সমস্যা বাড়ছে সুশীল কুমারের। এবার তাঁর আগাম জামিনের আবেদন খারিজ করে দিয়েছে রোহিনীর একটি আদালত।

দিল্লির ছত্রশাল স্টেডিয়ামের পার্কিংয়ে সাগর ধনকর নামে এক তরুণ কুস্তিগিরকে পিটিয়ে খুনে নাম জড়িয়েছে দুটি অলিম্পিক পদকের মালিক সুশীলের। এই ঘটনায় খুন, অপহরণ এবং অপরাধমূলক যড়ষন্ত্রের পাশাপাশি অস্ত্র আইনে মামলা দায়ের করা হয়। এফআইআর হতেই আত্মগোপন করেছেন তিনি। তাঁর খোঁজে প্রথমে লুকআউট নোটিশ জারি করে দিল্লি পুলিশ। তাতে কাজ না হওয়ায় তাঁর নামে ১ লক্ষ টাকা পুরস্কারের কথা ঘোষনা করেছে পুলিশ। এরপরই ১৭ মে আদালতের দ্বারস্থ হন সুশীল। আইনজীবীর মাধ্যমে আগাম জামিনের আবেদন জানান। তাঁর দাবি, এই ঘটনায় অভিযোগকারীদের বয়ান রেকর্ড করার পাশাপাশি তথ্য সংগ্রহের কাজ সম্পূর্ণ হয়েছে। এসময় তাঁকে গ্রেপ্তার করার কোনও প্রয়োজন নেই।

- Advertisement -

এদিন সেই আবেদনেরই শুনানি ছিল। নিজের আবেদনে সুশীল দাবি করেন, এই ঘটনার সঙ্গে তাঁর কোনও যোগ নেই। এমনকি ঘটনাস্থল থেকে বাজেয়াপ্ত হওয়া গাড়ি বা অস্ত্র তাঁর নয়। যদিও অতিরিক্ত সরকারী কৌসুলি অতুল শ্রীবাস্তব বলেন, একটি ফুটেজে তাঁকে লাঠি হাতে মারতে দেখা গিয়েছে। তদন্তকারী অফিসার ইনস্পেক্টর দীনেশ কুমারও জানান, ষড়যন্ত্রের সত্যতা বুঝতে ও খুনে ব্যবহৃত অস্ত্র উদ্ধারের জন্য সুশীলকে হেপাজতে নেওয়া প্রয়োজন। তিনি বলেন, এই ঘটনায় তিনি প্রধান অভিযুক্ত। গোটা ঘটনার পেছনে তাঁর বড় ভূমিকা আছে। ফরেন্সিকের রিপোর্টেও এই বিষয়টি নিশ্চিত করা হয়েছে। এরপরই তাঁরা আগাম জামিনের বিরোধিতা করেন।

সুশীলের আইনজীবী সিদ্ধার্থ লুথরা এদিন সওয়াল করতে গিয়ে ঘটনার দিন মার খাওয়া সোনুর দিকে আঙুল তুলেছেন। এই মামলায় অন্যতম অভিযোগকারী সোনুর বিরুদ্ধে অতীতে অপরাধের অভিযোগ রয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি। লুথরার কথায়, সোনু কুখ্যাত অপরাধী কালা জাঠেরিয়ার দলের অংশ। ওর বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ রয়েছে। আমি যাদের বিরুদ্ধে কেস লড়ছি, তারা অপরাধ জগতের সঙ্গে জড়িত। তবে শেষ পর্যন্ত অতিরিক্ত সেশনস জাজ জগদীশ কুমার সুশীলের আবেদন খারিজ করে দেন। পুলিশের দাবি, তিনি হরিয়ানায় লুকিয়ে রয়েছেন।