কোয়ারান্টিন থেকে ছাড়া পাচ্ছেন নিজামুদ্দিনের জামাত সদস্যরা

318

নয়াদিল্লি: দিল্লির বিভিন্ন কোয়ারান্টিন থেকে ২ হাজার ৪৪৬ জন তাবলিগী জামাত সদস্যদের ছেড়ে দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে দিল্লি সরকার। পাশাপাশি এই জামাত সদস্যরা তাদের বাড়ি ছাড়া যেন অন্য কোনও জায়গায় না যায় সেই বিষয়টি নিশ্চিত করতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে জেলাশাসকদের। অন্যান্য রাজ্য থেকে আগত এই তাবলিগী সদস্যদের সামাজিক দূরত্ব সহ বেশকিছু নিয়মাবলী মেনে এবং অন্যান্য প্রোটোকল অনুসারে তাদের নির্ধারিত জায়গায় বাসে পাঠানোর ব্যবস্থা করা হবে।

ডিডিএমএ’র বিশেষ সিইও কেএস মীনা জেলা প্রশাসকদের (প্রশাসন) চিঠি দিয়ে একথা জানিয়েছেন। তিনি আরও জানান, মার্চ মাসে দিল্লির নিজামুদ্দিন এলাকায় অনুষ্ঠিত একটি জামাতে প্রায় ৫৬৭ জন বিদেশী অংশ নেন। তাদের প্রশাসনের হাতে তুলে দেওয়া হবে। কোনও অবস্থাতেই ওই ব্যক্তিদের মসজিদসহ অন্য কোনও স্থানে যেতে দেওয়া উচিত নয়। তিনি আরও বলেন, অন্য রজ্যের জামাত সদস্যদের বঌাড়ি ফেরত পাঠাতে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। এই তাবলিগী সদস্যরা তাদের যার যার রাজ্যে পৌছানোর পর নোডাল অফিসার এবং আঞ্চলিক এসিপি সেই খবর জানাবেন।

- Advertisement -

দিল্লির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন সম্প্রতি বলেন, তাবলিগী সদস্যরা কোয়ারান্টিনে থাকার মেয়াদ শেষ করেছেন এবং কোভিড-১৯-এর শেষ রিপোর্ট নেতিবাচক ফল এসেছে। এ কারণে তাদের কোয়ারান্টিন থেকে ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। অন্য এক সরকারি আধিকারিক জানান, ভিসা লঙ্ঘনের মতো বেশ কয়েকটি অপরাধমূলক কাজের জন্য বিদেশ থেকে জামাতে অংশ নেওয়া কয়েকজন সদস্যকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হবে। জানা গিয়েছে, তাবলিগী সদস্যের মধ্যে ৯০০ জনের বাড়ি দিল্লিতেই। আগে তাঁদের বাড়ি ফেরার ব্যবস্থা করা হবে। বাকিদের ফেরত পাঠাতে সংশ্লিষ্ট রাজ্যের প্রশাসনিক আধিকারিকদের সঙ্গে যোগাযোগ যাচ্ছে দিল্লি সরকার। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, জামাতের কয়েক জন সদস্য বেপাত্তা হওয়ায়, নিজামউদ্দিন মার্কাজের প্রধান, মৌলনা সাদের বিরুদ্ধ ইতিমধ্যে মামলা শুরু হয়েছে।

নিজামুদ্দিনের মার্কাজ (কেন্দ্র) থেকে কয়েক হাজার তাবলিগ জামাত সদস্যদের নিয়ে একটি ধর্মীয় জমায়েতের আয়োজন করা হয়েছিল। করোনা আবহে এই জমায়েতে প্রশ্ন উঠেছিল বিভিন্ন মহল থেকে। কয়েকজন সদস্য করোনা ভাইরাসের ইতিবাচক পরীক্ষার পরে ওই অঞ্চলটি হটস্পট হয়ে ওঠে। এরপর দিল্লির নিজামউদ্দিন মার্কাজ থেকে কয়েক হাজার তবলিঘি জামাত সদস্যকে সরানো হয়। কেন্দ্রের নির্দেশ অগ্রাহ্য করেই গত কয়েক দিন ধরে সেখানে ধর্মীয় সমাবেশ চলছিল। সেসময় পরীক্ষায় প্রায় এক হাজার তবলিঘি সদস্যের করোনা পজিটিভ ধরা পড়ে। বাকি আরও কয়েক হাজার জনকে দিল্লির বিভিন্ন কেন্দ্রে কোয়ারানটিনে পাঠানো হয়।