শিলিগুড়ি পুরনিগমের মাতৃসদনে নার্সের অভাব, প্রসব বন্ধ ২২ দিন

397

ছবিঃ তপন দাস

ভাস্কর বাগচী, শিলিগুড়িঃ শিলিগুড়ি পুরনিগমের মাতৃসদন নিযে ফের অভিযোগ উঠতে শুরু করেছে। এবার নার্সের অভাবে গত ২২দিন ধরে প্রসব করানো বন্ধ রয়েছে মাতৃসদনে। যা নিয়ে রীতিমত বিরক্ত মাতৃসদনের চিকিত্সক থেকে রোগীর আত্মীয়স্বজনরা। মাতৃসদনে প্রসব না হওয়ার ফলে রোগীকে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে। কবে এই সমস্যা সমাধান হবে তা নিয়ে পরিস্কার কিছু বলতেও পারছে না পুরনিগমের স্বাস্থ্যবিভাগ।

- Advertisement -

কেন এমন পরিস্থিতি? শিলিগুড়ি পুরনিগমের মাতৃসদন নিয়ে অভিযোগ নতুন নয়। এর আগে বেশ কয়েকবার চিকিত্সকের অভাবে দীর্ঘদিন চিকিত্সা পরিসেবা বন্ধ থাকার অভিযোগ রয়েছে মাতৃসদনের বিরুদ্ধে। যেখানে মাতৃসদনের উপর প্রচুর রোগী প্রতিদিন নির্ভর করে থাকে, সেখানে সরকারি পরিসেবায় এত গাফিলতি কেন, তা নিয়ে প্রশ্ন রয়েছে। এবারে অভিযোগ, প্রায় ২২দিন ধরে শুধুমাত্র নার্স না থাকার কারণে মাতৃসদনে প্রসব বন্ধ হযে রয়েছে। পুরনিগমের স্বাস্থ্যবিভাগ সূত্রে খবর, গত কয়েকদিন আগে পুরনিগমের স্বাস্থ্যবিভাগের উদ্যোগে প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নার্সের সমস্যা মেটানোর জন্য বিভিন্ন নার্সিংহোমে কর্মরত কয়েকজন নার্সের ইন্টারভিউ নিযে সেখান থেকে তিনজনকে বেছেও নেওয়া হয়েছে। কিন্তু এরপর থেকে ফাইল চালাচালি করতে গিয়ে কেটে গিয়েছে ২২ দিন। এখনও পর্যন্ত ওই নার্সদের কেউ কাজে যোগ না দেওয়ায় প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত নার্সের অভাবে বন্ধ রয়েছে গর্ভবতীদের প্রসব। পুরনিগমের স্বাস্থ্যবিভাগের মেয়র পারিষদ শংকর ঘোষ বলেন, নার্স নিয়োগ হচ্ছে না বলে একটা সমস্যা হচ্ছে। বিকল্প ব্যবস্থাও কার্যকর করা যাচ্ছে না নিয়মের বেড়াজালে। এরজন্য আমি নিজেও লজ্জিত। ইতিমধ্যেই মেয়র উদ্যোগ নিয়েছেন। আশাকরি এই নিয়মের জায়গাটা যদি পরিস্কার করে দিতে পারেন আধিকারিকরা, তবে আগামীকালই আমরা নিয়োগ করে আবার পরিসেবা চালু করে দিতে পারব।