অ্যাকাউন্ট নম্বর আপলোডের সময়সীমা বাড়ানোর দাবি

194

পার্থসারথি রায়, সিতাই : ২০২১ সালের উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের অনলাইনে পড়াশোনার জন্য ট্যাব অথবা স্মার্টফোন কেনার জন্য মাথাপিছু ১০ হাজার টাকা করে দিতে চলেছে রাজ্য সরকার। সেজন্য আগামী ৩ জানুয়ারির মধ্যে স্কুলগুলিকে তাদের সমস্ত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর শিক্ষা পোর্টালে আপলোড করার নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। কিন্তু সমস্ত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পেতে সমস্যায় পড়েছে কোচবিহার জেলার বিভিন্ন মহকুমার বহু স্কুল কর্তৃপক্ষ। বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষের অভিযোগ, বুধবার পর্যন্ত প্রত্যন্ত এলাকার পরীক্ষার্থীদের অনেকের সঙ্গেই যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি। ফলে পরীক্ষার্থীদের একাংশের সরকারি অনুদান থেকে বঞ্চিত হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। পাশাপাশি রেগুলার পরীক্ষার্থী ও সিসি পরীক্ষার্থী সংক্রান্ত ধন্দ দেখা দিয়েছে। বাধ্য হয়ে বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ রাজ্য শিক্ষা দপ্তরকে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পোর্টালে আপলোডের ক্ষেত্রে সময়সীমা বাড়ানো সহ রেগুলার ও সিসি পরীক্ষার্থী সংক্রান্ত বিষয়ে স্পষ্ট বার্তা দেওয়ার দাবি জানিয়েছে।

দিনহাটা মহকুমার মাতালহাট হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক সুশান্ত বর্মন বলেন, আমাদের অনেক উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পোর্টালে আপলোড করা নেই। স্কুল বন্ধ থাকায় তাদের অনেকের সঙ্গে এদিন পর্যন্ত যোগাযোগ করা যায়নি, কারণ দূরদূরান্তেরও বেশ কিছু ছেলেমেয়ে রয়েছে। অনেককেই তাদের কনট্যাক্ট নম্বরে পাওয়া যাচ্ছে না। তাহলে ওই পরীক্ষার্থীরা তো এই প্রকল্পের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হবে। গিতালদহ হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক মলয়কুমার দাস বলেন, ৩ জানুয়ারির মধ্যে স্কুলের সমস্ত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থীর ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর সংগ্রহ করা সম্ভব হবে বলে মনে হচ্ছে না। চামটা আদর্শ উচ্চবিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক সুদেব দত্ত বলেন, ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পোর্টালে আপলোড করার সময়সীমা না বাড়ালে আমার স্কুলেও কিছু পরীক্ষার্থী বাদ পড়ার সম্ভাবনা রয়েছে। জেলার বিভিন্ন স্কুলে এই সমস্যার কথা জানা গিয়েছে। জেলা শিক্ষা দপ্তর সূত্রে জানা গিয়েছে, আগামী ৫ জানুয়ারি স্কুলগুলি উচ্চমাধ্যমিকের ফর্ম হাতে পাবে। বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষের ধারণা, এই ফর্ম ফিলআপ পর্ব চলাকালীন একশো শতাংশ পরীক্ষার্থীর থেকে সহজেই ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পাওয়া সম্ভব হবে। তাহলেই কোনও পরীক্ষার্থী সরকারি অনুদান থেকে বঞ্চিত হবে না।

- Advertisement -

এর পাশাপাশি রেগুলার ও সিসি পরীক্ষার্থীদের নিয়ে ধন্দে পড়েছে অনেক স্কুল কর্তপক্ষ। জানা গিয়েছে, রাজ্য স্কুল শিক্ষা দপ্তরের নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, ২০২১ সালের সমস্ত উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষার্থী সরকারের এই সুবিধা পাবে। কিন্তু নির্দেশিকায় রেগুলার ও সিসি পরীক্ষার্থীর কথা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা নেই। এর জেরে বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ ধন্দে পড়েছে যে রেগুলারদের সঙ্গে সিসি পরীক্ষার্থীদেরও এই প্রকল্পের আওতায় রাখা হবে কি না। কিছু স্কুল রেগুলার ও সিসি, উভয়কেই এই প্রকল্পের আওতায় নিতে শুরু করেছে। আবার কোনও স্কুল শুধু রেগুলার পরীক্ষার্থীদের এই প্রকল্পভুক্ত করার প্রক্রিয়া চালাচ্ছে বলে জানা গিয়েছে। সেক্ষেত্রে মহকুমা থেকে জেলা শিক্ষা দপ্তরের আধিকারিকদের কাছ থেকে কোনওরকম পরিষ্কার বার্তা স্কুলগুলির কাছে পৌঁছোয়নি বলে অভিযোগ উঠেছে। এক্ষেত্রে আপাতত কিছু বলার নেই বলে জেলা শিক্ষা দপ্তরের তরফে জানানো হয়েছে। বাধ্য হয়ে বিভিন্ন স্কুল কর্তৃপক্ষ রাজ্য শিক্ষা দপ্তরকে ব্যাংক অ্যাকাউন্ট নম্বর পোর্টালে আপলোডের ক্ষেত্রে সময়সীমা বাড়ানো সহ রেগুলার ও সিসি পরীক্ষার্থী সংক্রান্ত বিষয়ে স্পষ্ট বার্তা দেওয়ার দাবি জানিয়েছে। জেলা শিক্ষা দপ্তরের ডিআই কানাইলাল দে বলেন, এই প্রকল্পটির কাজ সরকারি নির্দেশ মেনেই স্কুলগুলির করার কথা। তবে এক্ষেত্রে উদ্ভূত সমস্যার কথা জানতে পেরেছি। বৃহস্পতিবার এই সংক্রান্ত বিষয়ে জেলায় মিটিং ডাকা হয়েছে। মিটিং না হওয়া পর্যন্ত  এক্ষেত্রে বলার কিছু নেই।