বনসহায়ক নিয়োগে দুর্নীতির তদন্তের দাবি

120

কালচিনি: দুদিন আগে আলিপুরদুয়ারের জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন বন সহায়ক পদে নিয়োগে দুর্নীতি করা হয়েছে। তাঁর অভিযোগের তীর ছিল সদ্য তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেওয়া রাজ্যের প্রাক্তন বনমন্ত্রী রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। মুখ্যমন্ত্রীর অভিযোগের পালটা জবাবে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ, করেছিলেন তৃণমূল নেতৃত্বের একাংশের বিরুদ্ধে। তৃণমূলের আলিপুরদুয়ার জেলা সভাপতি রাজীববাবুকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করেছিলেন বলেও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় অভিযোগ করেন। ঘটনার উচ্চ পর্যায়ের দাবি তুললেন প্রাচীন জনজাতি ঐক্য মঞ্চের প্রতিনিধিরা। শুক্রবার বিকেলে কালচিনির উত্তর রাভাবস্তির রাভা ডেভেলপমেন্ট কাউন্সিলের দপ্তরে সংগঠনের বৈঠকে ওই দাবিতে সোচ্চার হন সংগঠনের প্রতিনিধিরা। নিয়োগে দুর্নীতির উচ্চ পর্যায়ের তদন্ত ছাড়াও সম্পূর্ণ নিয়োগ প্রক্রিয়া বাতিলের দাবিতে সরব হয়েছে ওই সংগঠন। বোড়ো, রাভা, গেরো, টোটো জনজাতির সম্মিলিত সংগঠনের তরফে দাবি না মানা হলে বৃহত্তর আন্দোলনের হুমকি দেওয়া হয়েছে।

সংগঠনের আহ্বায়ক বিনয় নার্জিনারি বলেন, ‘আমাদের ৪ জনজাতির মানুষ উত্তরবঙ্গের আদিম ভূমিপুত্র। আমাদের জনজাতির বেশিরভাগ মানুষ উত্তরবঙ্গের জঙ্গল ঘেঁষা বিভিন্ন বনবস্তিতে বসবাস করেন। জঙ্গলে গাছ চুরি আটকান থেকে শুরু করে বন্যপ্রাণ রক্ষায় আমাদের ৪ জনজাতির মানুষের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। এছাড়াও জঙ্গল ঘেঁষা বনবস্তিতে বসবাস করার ফলে আমরা প্রকৃতির সান্নিধ্যে থেকে জীবনযাপন করি। বনবস্তিতে মানুষের রোজগার কম। তাই বন সহায়ক নিয়োগে প্রথম দাবিদার আমাদের জনজাতির যুবরা। সেটা না করে নিয়োগের ক্ষেত্রে দুর্নীতি করা হচ্ছে। এটা খুব দুর্ভাগ্যজনক। তাই আমরা রাজ্য সরকার তথা মুখ্যমন্ত্রীর কাছে আবেদন জানাব ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত শুরু করতে।‘ তদন্তে যাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হবে, তাঁদের আমরা গ্ৰেপ্তারের দাবি জানাব বলে জানিয়েছেন বিনয় নার্জিনারি। এদিনের সভায় একই রকম দাবি তোলেন রাভা জনজাতির প্রতিনিধি বিজনাথ রাভা সহ অন্যরা।

- Advertisement -