ছেলে-মেয়ের বিয়ের বয়স এক রাখার দাবি

164

নয়াদিল্লি: নারী, পুরুষ নির্বিশেষে বিবাহের ন্যূনতম বয়স অভিন্ন রাখা হোক। এই মর্মে দিল্লি ও রাজস্থান হাইকোর্টে মামলা রুজু হয়েছিল। সেই মামলা সুপ্রিম কোর্টে স্থানান্তরণের বিষয়টি বিবেচনা করবে সর্বোচ্চ আদালত। একটি জনস্বার্থ মামলায় মঙ্গলবার এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে প্রধান বিচারপতি শরদ অরবিন্দ বোবদের নেতৃত্বাধীন বেঞ্চ।

লিঙ্গ-সমতা, লিঙ্গ-ন্যায়বিচার ও মহিলাদের মর্যাদা রক্ষার্থে জনস্বার্থ মামলাটি করেছিলেন বিশিষ্ট অ্যাডভোকেট তথা দিল্লি বিজেপির মুখপাত্র অশ্বিনী উপাধ্যায়। বোবদের বেঞ্চ এনিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের মতামত জানতে চেয়ে নোটিশ পাঠিয়েছে।

- Advertisement -

এদেশে মেয়েদের বিয়ের ন্যূনতম বয়স ১৮। ছেলেদের ক্ষেত্রে ২১। বয়সের এই পার্থক্য ভারতীয় সংবিধানের ১৪, ১৫ ও ২১ অনুচ্ছেদে লিঙ্গ নির্বিশেষে ন্যায়বিচার ও সাম্য বিরোধী। দেশের সব নাগরিকের ক্ষেত্রে বিয়ের বয়স এক হওয়া উচিত বলে মনে করেন আবেদনকারী। এনিয়ে বিভিন্ন হাইকোর্টে চলা একাধিক জনস্বার্থ মামলার রায় যাতে অসংগতি তৈরি না করে, সেজন্য ভারতীয় সংবিধানের ১৩৯এ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী মামলাগুলি সুপ্রিম কোর্টে স্থানান্তরিত করে একসঙ্গে রায়ের আবেদন করেছেন অশ্বিনীবাবু। আবেদনকারী জানিয়েছেন, বিশ্বের ১২৫টি দেশে পুরুষ ও মহিলার বিয়ের বয়স সমান। বিয়ের বয়স আলাদা রাখার বৈজ্ঞানিক যুক্তি নেই বলেও জানিয়েছেন এই বিজেপি নেতা।