পরিষেবার দাবি আলিপুরদুয়ারের ‘নেই রাজ্য’ আসাম গেট বস্তিতে

66

আলিপুরদুয়ার: এ যেন প্রদীপের নিচেই অন্ধকার। ডুয়ার্স কন্যা থেকে প্রায় ৫০০ মিটার দূরে আলিপুরদুয়ার শহরের ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের ২ নং আসাম গেট বস্তি এলাকায় নেইয়ের তালিকা দীর্ঘ। গ্রাম পঞ্চায়েতের মত ন্যূনতম পরিষেবা টুকুও এখানে মেলে না। এখনও শহর এলাকার বাসিন্দাদের সরু আলপথ ধরে নিজেদের ঘর বাড়িতে যেতে হয়। এলাকায় প্রায় ৪০ টি পরিবারের বসবাস। কেউ অসুস্থ হলে তাকে কারও কাঁধে চেপে প্রায় ২০০ মিটার গিয়ে তারপর পাকা রাস্তায় গাড়িতে উঠতে হয়। নিকাশি নালা না থাকায় বর্ষাকালে জল জমে বাসিন্দাদের রীতিমতো নরকযন্ত্রণা পোহাতে হয়। পানীয় জলেরও কোনও উৎস নেই। এলাকায় অধিকাংশই নিম্নআয়ের মানুষের বসবাস। ফলে অগভীর টিউবয়েলের আয়রনযুক্ত জলেই পিপাসা মেটাতে হচ্ছে বাসিন্দাদের। এহেন পরিস্থিতির মধ্যেই গাদাগাদি করে পরিবার-পরিজনদের নিয়ে বাসিন্দারা বসবাস করেন।

এলাকার বাসিন্দা ভারতী দত্ত জানান, প্রায় ৩০ বছর ধরে বসবাস করছি। বারবার ভোট এলেই ভোটের আগে রাস্তা করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি অনেক শুনেছি, কেউ কাজের কাজটা করেনি। আরেক বাসিন্দা তাপস বসু জানান, রাস্ত, নিকাশিনালা, পানীয় জল কোনটাই এতদিন জোটেনি। তবে বর্তমান পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান মিহির দত্ত ভোটের আগে এলাকায় একটি ডিপ টিউবওয়েল বসানোর উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন। এলাকার বাসিন্দা দুলালী চৌহান, পাপিয়া প্রসাদ মাহাতো, স্বপ্না বসুরা জানান, তাঁরা সকলেই রাস্তার জন্য নিজেদের বাড়ির জায়গা ছাড়তে রাজি আছি, কিন্তু পুরসভাকে সেই রাস্তা করে দিতে হবে। রবিবার সকালে এলাকায় গিয়েছিলেন আলিপুরদুয়ার পৌরসভার প্রশাসক বোর্ডের চেয়ারম্যান মিহির দত্ত। তিনি বাসিন্দাদের সঙ্গে এ নিয়ে কথা বলেছেন। তিনি জানান, খুব শীঘ্রই পুরসভার ইঞ্জিনিয়ারকে এলাকায় পাঠিয়ে রাস্তার মাপজোঁক করে রাস্তা তৈরির কাজ শুরু করা হবে।

- Advertisement -